লাইফস্টাইল

নিয়মিত কফি পান করলে কমবে স্ট্রোক ও ডায়াবেটিসের ঝুঁকি

শরীর সুস্থ রাখতে বিশেষভাবে উপকারী কফি। কফিতে রয়েছে ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড, যা তাড়াতাড়ি মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। কালো কফি শরীরের বিপাকীয় হার বাড়ায়।

শারীরিক শক্তিও বাড়াতে সাহায্য করে কফি। কফি খেলে চট করে খিদে পেয়ে যাওয়ার প্রবণতা বন্ধ হয়।

দিনে ২ কাপ কফি, ধৈর্য ও গতি বাড়াতে সহায়ক। নিয়মিত কফি পান করলে স্ট্রোকের আশঙ্কা কমে। এছাড়া কফিতে বাতের সমস্যা কমে।

ক্যাফেইন যুক্ত কফি পানে ক্লান্তি দূর হয়। ক্যাফেইন যুক্ত বা বিহীন, যে কোনো ধরনের কফি টাইপ টু ডায়াবেটিস রোগের ঝুঁকি কমায়।

তবে কফি পানে সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষ করে সকালে খালি পেটে কফি পান থেকে বিরত থাকতে বলেন তারা। কেননা খালি পেটে কফি পানে পাকস্থলিতে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড তৈরি হয়। পাকস্থলীতে প্রচুর পরিমাণে এই অ্যাসিড জমলে হজমজনিত সমস্যা হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button