বিনোদন

উরফি প্রশ্ন করলেন অভিনেতাদের মধ্যে হিন্দু-মুসলিম কেন?

‘মুসলিম অভিনেত্রীদের প্রতি পক্ষপাত করেছে’, ‘পাঠান’ সিনেমার সমালোচনা করতে গিয়ে এমনই মন্তব্য করেছিলেন কঙ্গনা রানাউত। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার তীব্র প্রতিবাদ করেন উরফি জাভেদ। অভিনেতাদের মধ্যে আবার হিন্দু-মুসলিম কেন?
এমনই প্রশ্ন তোলেন উরফি। টুইটের মাধ্যমেই তাঁর সেই প্রশ্নের উত্তর দেন কঙ্গনা।

‘এই দেশ শুধু খানদের ভালবেসেছে, বার বার ভালবেসেছে, সময়ে সময়ে ভালবাসায় ভরিয়ে দিয়েছে। মুগ্ধ হয়ে মুসলিম অভিনেত্রীদের প্রতি পক্ষপাত করেছে। তাই ভারতবর্ষকে হিংসাত্মক ও ফ্যাসিস্ট একেবারেই ভাবা উচিত নয়। সারা বিশ্বের ভারতের মতো আর কোনও দেশ নেই’, ‘পাঠান’ সংক্রান্ত একটি পোস্ট শেয়ার করে লেখেন কঙ্গনা।

কঙ্গনার এই টুইট শেয়ার করেই উরফি লেখেন, ‘হে ভগবান! মুসলিম অভিনেতা, হিন্দু অভিনেতা, এই বিভেদ কেন? শিল্পকে ধর্মের ভিত্তিতে আলাদা করা যায় না। সকলে শুধুই অভিনেতা।’ উরফির টুইট শেয়ার করে আবার কঙ্গনা লেখেন, ‘প্রিয় উরফি তুমি আদর্শ পরিস্থিতির কথা বলছে অভিন্ন দেওয়ানি বিধি বা ইউনিফর্ম সিভিল কোড ছাড়া তা সম্ভব নয়। যতদিন না এমনটা হচ্ছে ততদিন দেশ ও সংবিধান এভাবেই বিভক্ত থাকবে। চলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে মিলিতভাবে আবেদন জানাই যাতে ২০২৪ সালের ইস্তাহারে ইউনিফর্ম সিভিল কোড রাখা হয়, রাজি আছ?’

উল্লেখ্য, নেটদুনিয়া মারফত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী অভিন্ন দেওয়ানি বিধি বা ইউনিফর্ম সিভিল কোড ভারতে নাগরিকদের ব্যক্তিগত আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের প্রস্তাব। যা সকল নাগরিকের ক্ষেত্রে তাদের ধর্ম নির্বিশেষে সমানভাবে প্রযোজ্য করার কথা বলা হয়। বর্তমানে, বিভিন্ন সম্প্রদায়ের ব্যক্তিগত আইন তাদের ধর্মীয় শাস্ত্র দ্বারা পরিচালিত হয় বলেই জানা গিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button