হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫ দেশের বাজারে

হুয়াওয়ের তৈরি সর্বশেষ নোটবুক হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫ এখন বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। নতুন এই নোটবুকটিতে ইনটেলের ১১তম জেনারেশন কোর আই ফাইভ প্রসেসর ব্যবহার করায় আগের যেকোনো প্রজন্মের তুলনায় স্মার্ট এই ডিভাইসটি অধিকতর উন্নত পারফর্মেন্স এবং ফিচারসমৃদ্ধ। তরুণ-তরুণী ব্যবহারকারীদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে তৈরি হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫-এ ভার্চুয়াল ক্লাস থেকে শুরু করে মাল্টিমিডিয়ার ব্যবহারসহ সকল পরিস্থিতিতেই অসাধারণ পারফরম্যান্স ও অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে।

হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫-তে আগের তুলনায় আরও বেশি শক্তিশালী প্রসেসরের সঙ্গে দ্রুত গ্রাফিক্স প্রসেসিং ক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে এতে সম্পূর্ণ নতুন ইনটেল আইরিস এক্সই গ্রাফিক্স কার্ড যুক্ত করা হয়েছে। এছাড়াও, এতে যুক্ত হওয়া মাল্টি-স্ক্রিন কোলাবোরেশন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট পাওয়ার, ডুয়েল অ্যান্টেনা ওয়াইফাই ৬ এবং রিভার্স চার্জিংয়ের মতো উদ্ভাবনী সব প্রযুক্তিগুলো নোটবুক ব্যবহারকারীদের অধিকতর উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদান করবে।

ভিউয়িংয়ের ক্ষেত্রে সমৃদ্ধ সিনেমাটিক অভিজ্ঞতা দিতে ৮৭% স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও এবং ১৬:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওসহ হুয়াওয়ের নতুন মেটবুকটিতে একটি ১৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস অ্যান্টি গ্লেয়ার ডিসপ্লে একিভূত রয়েছে। যার ক্লাসিক স্পেস গ্রে বা মিস্টিক সিলভার কালারওয়ের মেটাল বডির মিনিমালিস্ট ডিজাইনে রয়েছে হুয়াওয়ের ‘পিওর শেপ’ ডিজাইন দর্শনের সঠিক প্রতিফলন।

গুণগত মান এবং উৎপাদন উৎকর্ষে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হুয়াওয়ের তৈরি স্লিম ডিজাইনের প্রতিটি মেটবুক ডি১৫-এর ওজন মাত্র এক কেজি ৫৬০ গ্রাম হওয়ায় ভ্রমণের সময় সহজেই এটিকে সঙ্গী হিসেবে নেওয়া যাবে। নোটবুকের সাইডবারে থাকা বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পোর্টের বৈচিত্র্যপূর্ণ অবস্থান বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর প্রয়োজন মেটাবে।

অত্যাধুনিক ১০এনএম সুপারফিন প্রযুক্তির সঙ্গে নোটবুকটিতে ইনটেল কোর আই ফাইভ ১১তম প্রজন্মের প্রসেসর ব্যবহার করায় এই পিসিটি শুধুমাত্র কাজ করার উপযুক্ত ডিভাইসই নয় সেসঙ্গে বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে।

দৈনন্দিন ব্যবহারকে স্বাচ্ছন্দ্যময় করতে এতে পূববর্তী প্রজন্মের নোটবুকগুলো তুলনায় দ্রুতগতির কোয়াড কোর এইট-থ্রেড প্রসেসরের সঙ্গে ইন্টিগ্রেটেড ইনটেল আইরিস এক্সই গ্রাফিক্স কার্ড যুক্ত করা হয়েছে। নতুন নোটবুকটিতে পঠন এবং লেখার কাজ দ্রুততার সঙ্গে করার জন্য এতে ১৬জিবি পর্যন্ত ডিডিআর৪ ডুয়েল চ্যানেল মেমরি এবং একটি এনভিএমই পিসিআইই-এর একটি উচ্চগতির এসএসডি রয়েছে। যা পুরো সিস্টেমটির কার্যক্ষমতা আরও বহুগুণে বাড়িয়ে দেবে। বিরতিহীন কাজে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগের জন্য এতে একটি ডুয়েল অ্যান্টেনার ওয়াইফাই ৬ নেটওয়ার্ক ইন্টারফেস কার্ড যুক্ত রয়েছে।

এক ট্যাপে উইন্ডোজ এবং অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সুবিধাকে হাতের নাগালে নিয়ে আসতে এতে হুয়াওয়ের উন্নত শেয়ার সুবিধা সংযুক্ত করা হয়েছে। এখন স্মার্টফোনকে সহজেই হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫-এর সঙ্গে যুক্ত করে এর সন্নিবেশীত অন্যান্য ডিভাইসগুলো সহজে ব্যবহার করা যাবে। একই সময়ে কমপক্ষে তিনটি সক্রিয় মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার ক্রস ডিভাইসের সর্বাধিক সুবিধা নিশ্চিত করবে।

হুয়াওয়ের সুপারচার্জ টিম সমর্থিত হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫-এর এসি অ্যাডাপ্টার ডিভাইসগুলোকে দ্রুত চার্জ করবে। এমনকি মেটবুকটি বন্ধ থাকা অবস্থায়ও রিভার্স চার্জিং সুবিধা পাওয়া যাবে। এছাড়াও, হুয়াওয়ের সর্বাধুনিক সব প্রযুক্তি যেমন ফিঙ্গারপ্রিন্ট পাওয়ার বাটন, রিসিজড ক্যামেরা এবং অন্যান্য উন্নত ফিচারসমৃদ্ধ হুয়াওয়ে মেটবুক ডি১৫-কে অধিকতর ব্যবহারকারীবান্ধব ডিভেইসে রুপান্তর করেছে।