ঢাকা চট্টগ্রাম বিমান টিকিট – ঢাকা চট্টগ্রাম বিমান ভাড়া

dhaka to chattagram airঢাকা থেকে চট্টগ্রামে বিমানে যেতে সময় লাগে ৪০-৫০ মিনিট। ১৯৭২ সালের ৭ মার্চ ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ফ্লাইটের মাধমে বাংলাদেশ বিমানের যাত্রা শুরু হয়।

বর্তমানে ৩টি বিমান সংস্থা ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এগুলো হল-

১. বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স
২. নভোএয়ার
৩. ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ফ্লাইট সমূহ

সপ্তাহের প্রায় প্রতিদিনই ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ফ্লাইট রয়েছে। ঢাকা – চট্টগ্রাম আকাশপথে বর্তমান ফ্লাইট সংখ্যা সপ্তাহে কম বেশি ২১ থেকে ৩০টি। ঢাকা চট্টগ্রাম রুটে কোন বিমান সংস্থা কয়টি ফ্লাইট পরিচালনা করছে তাঁর একটি হিসাব নিচে দেয়া হল।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স : ৩ – ৭টি
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স : ৫ – ৬টি
নভোএয়ার : ৫ – ৬টি

ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের বিমান ভাড়া

উন্নত সেবা ও কম ভাড়ার কারণে বাংলাদেশে বিমান ভ্রমণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিমান ভাড়া সবসময় পরিবর্তনশীল। ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এর বিমান ভাড়াও এর ব্যতিক্রম নয়। ভ্রমণের তারিখ অনুযায়ী ভাড়া পরিবর্তিত হতে পারে।

ঢাকা টু চট্টগ্রাম বিমান ভাড়া

জেনে নিতে পারেন ঢাকা থেকে যশোর রুটের সবগুলো এয়ারলাইন্সের ভাড়ার একটি তালিকা। ভাড়া সংক্রান্ত তথ্যগুলো সংশ্লিষ্ট বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে নেয়া হয়েছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স
৩,০০০ টাকা (সুপার সেভার)
৮,০০০ টাকা (বিজনেস ফ্লেক্সিবল)

নভোএয়ার
২,৫০০ টাকা (স্পেশাল প্রোমো)
৯,২০০ টাকা (ফ্লেক্সিবল)

ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স
২,৫০০ টাকা (সর্বনিম্ন)
৮,৭০০ টাকা (সর্বোচ্চ)

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম বিমান টিকিট কিভাবে করবেন

আভ্যন্তরীণ বিমান ভ্রমণের জন্য পাসপোর্টের প্রয়োজন হবে না। তাই বিমান ভ্রমণের আলাদা কোন ঝামেলা নেই। আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখলেই হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে যেকোন অনুমোদিত অফিস বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচয়পত্র হলেও চলবে।

আপনার পছন্দের বিমান অফিস থেকে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের বিমান টিকিট করে নিতে পারবেন। ওয়েবসাইটগুলো থেকেও টিকিট করতে পারেন। যারা ডিসকাউন্ট পছন্দ করেন, তারা ট্রাভেল এজেন্সি থেকে টিকিট নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে কিছু ডিসকাউন্টও পেয়ে যেতে পারেন।

লাগেজ সংক্রান্ত তথ্য

নিয়ম অনুযায়ী ইকোনমি যাত্রীরা প্রত্যেকে ২০ কেজি পরিমাণ চেক কৃত মালামাল বহন করতে পারবেন। তাছাড়া কেবিন লাগেজ হিসেবে ৭ কেজি মাল বহন করা যাবে। বিজনেস ক্লাসের যাত্রীরা ৩০ কেজি চেক কৃত মালামাল এবং ৭ কেজি কেবিন লাগেজ বহন করতে পারবেন। এর চাইতে বেশি লাগেজ পরিবহন করতে চাইলে অতিরিক্ত ফি দিতে হবে। এই ফি সম্পর্কে জানার জন্যে আপনার নির্দিষ্ট এয়ারলাইন্সের সাথে যোগাযোগ করুন। ফ্লাইট এক্সপার্ট