গুগলের ফেইক রিভিউ নিয়ে যুক্তরাজ্যের কড়া অভিযান

গুগল বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ফেইক রিভিউ সরাতে ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের কম্পিটিশন অ্যান্ড মার্কেটস অথরিটি। বিবিসির একটি অনুসন্ধানে এ তথ্য বেরিয়ে আসে। তারা জানায়, গুগলের ব্যবহারকারীরা অর্থ আদায়ের জন্য দীর্ঘদিন ধরে ফেইক রিভিউ তৈরি করে আসছে। কিন্তু গুগল তা সরাতে ব্যর্থ হয়েছে। তবে যুক্তরাজ্যের কড়া অভিযানের মুখে গুগল বলছে, ফেইক রিভিউ প্রতিরোধের জন্য তারা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

বর্তমানে গুগল ও অন্য রিভিউ সাইটগুলো যুক্তরাজ্যের কম্পিটিশন অ্যান্ড মার্কেটস অথরিটির তদন্তের আওতায় রয়েছে। তাদের তদন্তের ফলাফলে উল্লেখ করা হয়, গুগলের অর্ধেক ব্যবহারকারী স্থানীয় ব্যবসার অনলাইন রিভিউ দেখেন।

গুগলে ফেইক রিভিউকারীদের ব্যাপারে গত বছর থেকে কম্পিটিশন অ্যান্ড মার্কেটস অথরিটি কড়া অভিযান শুরু করে। তারা ফাইভ-স্টার রিভিউ নামে অনলাইনে ফেইক ব্যবসার তালিকা তৈরি করেছে এবং গুগলকে যেসব কোম্পানি রিভিউয়ের জন্য পেমেন্ট করেছে তাদের খুঁজে বের করা হচ্ছে। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এই সার্ভিসের জন্য যুক্তরাজ্যের কম্পিটিশন অ্যান্ড মার্কেটস অথরিটি ১৫ কোটি ডলার ব্যয় করেছে।

বিবিসি জানায়-

১. ১৫ রিভিউকারী এডিনবার্গ সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন ব্যবসা ও লন্ডনের একটি সাইকিক ওয়েবসাইটে ফাইভ-স্টার রিভিউ দিয়েছেন।

২. ক্যানারি হোয়ার্ফে ২০২০ সালে একজন স্টকব্রোকারের রিভিউ ভালো ছিলো না। কয়েক মাসের মধ্যে তিনি ৩০টি ফাইভ-স্টার রিভিউ পেয়েছেন।

কম্পিটিশন অ্যান্ড মার্কেটস অথরিটি বলছে, গুগলে যুক্তরাজ্যের ৪৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ফেইক রিভিউ রয়েছে। এর মধ্যে তিন জনকে সন্দেহ করা হচ্ছে। ফেইক রিভিউয়ের জন্য এসব রিভিউকারীর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোম্পানির অর্থ লেনদেন হয়েছে বলে তারা মনে করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *