মায়ের জন্য মুক্তি মিলছে শাহাদাতের

ঘরোয়া ক্রিকেটে সতীর্থ ক্রিকেটারের গায়ে হাত তোলার দায়ে পাঁচ বছরের জন্য শাহাদাত হোসেন রাজীবকে নিষিদ্ধ করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। সকল প্রকার প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হয়ে রাজীবের আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যায়। মায়ের চিকিৎসকসার টাকা যোগান দিতে হিমশিম খাচ্ছেন তিনি। এজন্য বিসিবির কাছে ক্ষমা চেয়ে আবেদন করেন। মানবিক দিক বিবেচনায় রাজীবের আবেদন আমলে নিয়ে তাকে মুক্তি দেওয়ার কথা ভাবছে টাইগার বোর্ড।

সোমবার সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান। এ প্রসঙ্গে আকরাম বলেন, ‘রাজীব লিখিতভাবে আমাদের কাছে একটি আবেদন করেছে। যেহেতু তার মায়ের ক্যান্সার, বিষয়টি আমরা বিবেচনায় নিয়েছি। ইতোমধ্যে আমি আরেক বোর্ড পরিচালক ও বোর্ডের অর্থনৈতিক বিভাগের প্রধান ইসমাইল হায়দার মল্লিকের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি।’

আকরাম খান আরও জানান, ‘রাজীবের সাজা মওকুফের বিষয়টি ইতোমধ্যে বিসিবির শৃঙখলা কমিটিকে জানিয়েছি। তার সবুজ সংকেত পেলেই রাজীবকে ক্রিকেট খেলার অনুমোদন দিব।’

২০১৯ সালে খুলনায় জাতীয় ক্রিকেট লিগ চলাকালীন সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রকে মারধর করেন রাজীব। এই অপরাধে তাকে ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে বিসিবি। গত ১৫ মাস ক্রিকেটের বাইরে থাকায় আর্থিকভাবে টানাপোড়নে পড়েছেন এই পেসার। তার মায়ের ক্যান্সার তৃতীয় স্টেজের চিকিৎসা চলছে। এই চিকিৎসার খরচ বহন করা কষ্ট হয়ে পড়েছে লর্ডসের অনার্স বোর্ডে নাম লেখানো এই পেসারের। এজন্য মানবিক দিকটি আমলে নিয়ে তাকে মুক্তি দেওয়ার ভাবনা বিসিবির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *