অস্ট্রেলিয়াকে উড়িয়ে বাংলাদেশকে নিউজিল্যান্ডের হুঁশিয়ারি

কন্ডিশনের কারণে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বেকায়দায় পড়াটা যেন বাংলাদেশের জন্য নিয়মিত ব্যাপার। সেটা শনিবার এক ভিডিওবার্তায় মনেও করিয়ে দিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তবে নিউজিল্যান্ডের ফর্মও কি কিছুটা দুশ্চিন্তায় রাখবে না তামিম ইকবালদের? তাদের মুখোমুখি হওয়ার ঠিক আগে অস্ট্রেলিয়াকে ৩-২ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারিয়েছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

নিউজিল্যান্ডের জেতার ধরনটাও যেন হুঁশিয়ারি জানাচ্ছে বাংলাদেশকে। যে তিন ম্যাচে জিতেছেন উইলিয়ামসনরা, সে ম্যাচগুলোয় সুযোগই পায়নি অস্ট্রেলিয়া। শেষ ম্যাচে স্বাগতিকদেরকে ১৪২ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছিল অজিরা। সে লক্ষ্য তাড়া করতে নিউজিল্যান্ড নেয় মাত্র ১৫.৩ ওভার।

কিউইদের এই রান তাড়ায় বড় ভূমিকা পালন করেছেন মার্টিন গাপটিল। তার ৪৬ বলে ৭১ রানের ইনিংসে ভর করেই বড় জয় নিশ্চিত হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের। উদ্বোধনী জুটিতে সঙ্গী ডেভন কনওয়েকে সঙ্গে নিয়ে প্রথম পাওয়ার প্লেতে তুলে নিয়েছিলেন ৫১ রান। এরপর সেটাকে শতরানে রূপ দিতে দুজনকে খেলতে হয় মাত্র ১১.২ ওভার। সে ওভারেই অবশ্য কনওয়ে ফেরেন ৩৬ রান করে। এরপর উইলিয়ামসন শূন্য হাতে ফিরলে একটু চাপ চলে আসে নিউজিল্যান্ডের ওপর।

তবে গ্লেন ফিলিপের ঝড়ে সেটা সহজ হয়ে যায় স্বাগতিকদের জন্য। তিনি যখন নেমেছেন, নিউজিল্যান্ডের তখন প্রয়োজন আরো ৩৭ রান। তার ৩৪ই আসে তার ব্যাট থেকে, ৫ চারের সঙ্গে খেলেছেন দুটো ছক্কা। মাঝে গাপটিলকে হারালেও ৭ উইকেটের জয়টা এসেছে অনায়াসেই। টানা পঞ্চম সিরিজ জয়ও নিশ্চিত হয়ে যায় কেন উইলিয়ামসনের দলের।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করা অস্ট্রেলিয়া ম্যাথিউ ওয়েডের ২৯ বলে ৪৪ এ ভর করে ভালো সূচনা পায়। তবে পরে ইশ সোধি, মিচেল স্যান্টনার আর মার্ক চ্যাপম্যানের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ১৪২ রানের পুঁজি পায় অস্ট্রেলিয়া।

এই নিউজিল্যান্ডেরই মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ডানেডিনে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেটি হবে আগামী ২০ মার্চ। সিরিজের পরের দুই ওয়ানডে ২৩ ও ২৬ মার্চ। এরপর আগামী ২৮ মার্চ থেকে শুরু টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *