অনলাইনে অ্যামাজন বন বিক্রির বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ

ফেসবুকের মাধ্যমে অ্যামাজন বনের সংরক্ষিত অঞ্চল বিক্রির বিষয়ে তদন্তের আদেশ দিয়েছেন ব্রাজিলের সুপ্রিম ফেডারেল আদালত। বিবিসির অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের সূত্র ধরে শুক্রবার এ আদেশ দেয়া হয়।

আদালত বলছেন, সংশ্লিষ্ট অপরাধীদেরকে দেশটির সরকারের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা উচিত। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক বলছে, স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত তারা। তবে অ্যামাজন বন বিক্রি বন্ধের বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে কি না সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ফেসবুক।

বিশ্বে সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্ট বনাঞ্চল অ্যামাজন এবং বনাঞ্চলটিতে পর্যাপ্ত কার্বন থাকার কারণে বৈশ্বিক উষ্ণায়ন কম হচ্ছে। এই বনে ৩০ লাখ প্রজাতির গাছ ও প্রাণী রয়েছে এবং ১০ লাখ আদিবাসীগোষ্ঠী বসবাস করে।

অনলাইনে বিক্রি
ব্রাজিলের সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি লুইস রবার্টো বারোসো দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল ও বিচার মন্ত্রীকে বিবিসির অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বিষয়টি তদন্তের আহবান করেছেন। আর্টিকুলেশন অব ইনডেজিনাস পিপলস অব ব্রাজিল এনজিও ও ৬ রাজনৈতিক দলের করার মামলার দায়িত্বে রয়েছেন তিনি।

বাদীপক্ষের অভিযোগ, দেশটির সরকার আদিবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে ছড়িয়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করতে ব্যর্থ হয়েছে। ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে বিক্রি করায় তাদের বিচারের মুখোমুখি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিচারপতি লুইস রবার্টো বারোসো। তিনি উরু ইউ ওয়াউ ওয়াউ আদিবাসী গোষ্ঠীর প্রতি সহানুভূতি জানিয়েছেন।

বিবিসির অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়, বনভূমিটির সংরক্ষিত অঞ্চলে তারা বসবাস করে। তাদের আবাসস্থলকেই স্থানীয় ১৬ হাজার ৪০০ পাউন্ডে বিক্রি করে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

নেই কাগজপত্র
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছিলো যে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে বিজ্ঞাপন দিয়ে বনটি বিক্রির চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মটি সেসব পোস্ট এখন অবধি মুছে দেয়নি। এ তালিকায় আদিবাসীদের অঞ্চল এবং জাতীয় বনাঞ্চলও রয়েছে।

স্যাটেলাইট ছবি ও জিপিএসের সাহায্যে বিষয়টি জানা যায়। তবে বেশিরভাগ বিক্রেতা বনের বৈধ মালিকানা প্রমাণ করতে সমর্থ হয়নি।

ফেসবুকে বিবিসি চার বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলেছিলো। অনুসন্ধানের সময় তারা নিজেদের সম্পদশালী বিনিয়োগকারী হিসেবে দাবি করে।

‘দখলকৃত বন’
যারা আদিবাসীদের সংরক্ষিত অঞ্চলকে দখল করতে চায়, ব্রাজিলের সিনেটের পরিবেশ কমিশনের প্রধান জ্যাকস ওয়াগনার তাদেরকে ‘অপরাধী’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। তিনি বলেন, ফেসবুকের নীতিমালা পর্যালোচনার জন্য আহবান জানিয়ে আইনসভার সদস্যরা এক প্রস্তাব পেশ করেছে এবং তারা দখলদারদের কঠোরভাবে দমনের দাবি জানিয়েছেন।’

ফেসবুক আগেই বলেছিলো, তারা মনে করছে অ্যামাজন বনাঞ্চল বিক্রির বিষয়টি অবৈধ এবং জটিলতার কারণে এ বিষয়ে তাদের পক্ষে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব নয়। তবে দেশটির নিম্নকক্ষের কংগ্রেসম্যান নিলটো ট্যাটো বলেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে আদিবাসীদের প্রতি সহিংস উপায়ে বনাঞ্চল ও মাদক বিক্রির মধ্যে তফাৎ কোথায়? ফেসবুক কি মাদক বিক্রি করতে পারে? আইনসভার সদস্য হিসেবে আমি এ প্রশ্ন উত্থাপন করতে পারি।’

আন্তর্জাতিক চাপ
মরুকরণ ঠেকাতে না পারার কারণে ব্রাজিলের সরকার আন্তর্জাতিকভাবে ব্যাপক চাপের মধ্যে রয়েছে। বিশেষ করে দেশটির কনজারভেটিভ দলগুলো প্রেসিডেন্ট জেয়ার বোলসোনারোর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলছেন, দেশটির সরকার রেইনফরেস্ট বনের গাছ কাটায় উৎসাহিত করছে। বিবিসির অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বন উজাড়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা দেশটির প্রেসিডেন্টকে তাদের বন্ধু হিসেবে দেখছেন।

ব্রাজিলের পরিবেশ মন্ত্রী রিচার্ডো স্যালস বলেন, ‘অপরাধের বিষয়ে সরকার কোনো ছাড় দিতে রাজি নয়। বিশেষ করে পরিবেশ বিষয়ক অপরাধ করলে সেটি সহ্য করা হবে না। প্রেসিডেন্ট জেয়ার বোলসোনারোর সরকার এটি স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন।’

জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেন, ‘অবৈধভাবে মরুকরণ করার মাধ্যমে তারা প্যারিস চুক্তি ও বায়োলজিক্যাল ডাউভার্সিটি কনভেনশনসহ অন্যান্য চুক্তি ও অঙ্গীকার লঙ্ঘন করেছে।’

সূত্র: বিবিসি