খেলা

টানা জয়ের পর গার্দিওলা বললেন, নরক-জয় করেছে সিটি

টানা ২১ জয়। তাও ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে, ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারির ঠাসবুনটের সূচি সামলে। ম্যানচেস্টার সিটির এমন কীর্তির সর্বশেষটি এসেছে বুধবার রাতে, উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে। টানা জয়ের পর কোচ পেপ গার্দিওলা জানালেন, জানুয়ারির কঠিন সূচিতেও এ কীর্তি নরক-জয়ের সমান।

টানা ২০ জয়ের পর সিটি অবশ্য নিজেদের মাঠে ড্রয়ের শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল। তবে শেষ দশ মিনিটের উন্মাদনায় সেটা দারুণভাবেই উড়িয়ে দিয়েছে গার্দিওলার দল।

চলমান ২০২০-২০২১ মৌসুমের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি ম্যানচেস্টার সিটির। তবে লিগের শুরুটা এই উলভসের বিপক্ষে তাদেরই মাঠে ৩-১ গোলের জয় দিয়ে করেছিল গার্দিওলার দল। প্রথম লেগের ফলাফলের পুনরাবৃত্তি ঘটানোর সম্ভাবনা কেভিন ডি ব্রুইনারা জাগিয়েছেন শুরু থেকেই।

মাঝমাঠের দখলটা সিটি নিয়েছিল ম্যাচের শুরু থেকেই, তবে সৃষ্টি হচ্ছিল না গোলের সুযোগ। তবে যেই না একটা সুযোগ তৈরি করল সিটি, এগিয়ে গেল তখনই। ডান প্রান্ত থেকে রিয়াদ মাহরেজ বক্সে থাকা রাহিম স্টার্লিংকে নিচু ক্রস বাড়িয়েছিলেন। ইংলিশ ফরোয়ার্ডকে রুখতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়ান উলভস মিডফিল্ডার লিয়ান্ডার। বিরতির আগে আরো একবার প্রতিপক্ষ জালে বল জড়িয়েছিল সিটি। তবে আইমেরিক লাপোর্তের চেষ্টাটা বিফলে যায় অফসাইডের খড়গে।

উলভস গোলরক্ষক রুই প্যাত্রিশিও বেশ কয়েকবার গোলবঞ্চিত রেখেছেন সিটিকে। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বের্নার্দো সিলভার হেডার রুখেছেন, বিরতির পর কেভিন ডি ব্রুইনার নিচু শট ঠেকিয়েছেন দারুণ দক্ষতায়। ফলে মুহুর্মুহু আক্রমণ সয়েও ম্যাচে ছিল উলভস।

৬১ মিনিটে তারই সুফল পায় কোচ নুনো এস্পিরিতোর দল। জোয়াও মুটিনিওর ফ্রি কিকে মাথা ছুঁইয়ে কনর কোডি সমতা ফেরান ম্যাচে। এরপর সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ড্রয়ের শঙ্কা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছিল সিটি-শিবিরে।

ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড গ্যাব্রিয়েল জেসুসের কল্যাণে সে শঙ্কা থেকে মুক্তি মেলে গার্দিওলার দলের। ৮০ মিনিটে কাইল ওয়াকারের শট উলভস রক্ষণ ঠেকালেও কাছ থেকে জেসুসের জোরালো শট ঠেকাতে ব্যর্থ হয় সফরকারীরা। নির্ধারিত সময়ের শেষ দিকে মাহরেজ ব্যবধান বাড়ান সিটির। যোগ করা সময়ে জোড়া গোলের দেখা পান জেসুস। শুরুতে অবশ্য অফসাইডের বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি, তবে ভিএআরে পাল্টায় সিদ্ধান্ত, তাতে শেষ পেরেকটি ঠোকা হয়ে যায় উলভসের কফিনে।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ২১তম জয়টিও তুলে নেওয়া হয় তাতে। শীতকালের ঠাসা সূচি, প্রতিকূল প্রাকৃতিক পরিবেশ এড়িয়ে এমন কীর্তি গার্দিওলার কাছে বিশেষ কিছুই। সিটি কোচের ভাষ্য, ‘শীতকালে ইংল্যান্ডে নরক নেমে আসে। এ সময়েও আমরা যা করেছি তা অবিশ্বাস্য। এটা অসাধারণের চেয়েও বেশি কিছু।’

এই জয়ের ফলে ২৭ ম্যাচ শেষে ২০ জয় আর পাঁচ ড্রয়ে দলটির সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৬৫। দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড খেলেছে একটি ম্যাচ কম, তাদের পয়েন্ট ৫০!

১১ ম্যাচ বাকি আর, এ সময়ে ১৫ পয়েন্টের ব্যবধান যে কোনো দলকেই দিতে পারে দারুণ স্বস্তি। তবে কোচ গার্দিওলা জানালেন, শিরোপা জিতে তবেই ক্ষান্ত হতে চান তিনি। বললেন, ‘টানা জয়ের জন্য খেলোয়াড়রা আমার প্রশংসা পাবে কিন্তু লিভারপুল এখনো চ্যাম্পিয়ন। লিগ শিরোপা জেতার জন্য আমাদের আরো পয়েন্ট দরকার।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button