মোশাররফ করিমের সিনেমা দেখবে নেপালের দর্শক

‘ডিকশনারি’ দিয়ে টলিউডে অভিষেক হয় মোশাররফ করিমের। ১২ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পায় সিনেমাটি। এরপর ব্যাপক প্রশংসিত হয় দর্শকদের কাছে। বক্স অফিসেও ভালো ব্যবসা করেছে।

সেই আলোচনা শেষ না হতেই সফলতার আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ‘ডিকশনারি’। নেপাল আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে নির্বাচিত হয়েছে এই সিনেমা। এর অভিনেত্রী নুসরাত জাহান টুইট করে সেই খবর জানিয়ে দেন ভক্তদের।

১০ বছর পর ‘ডিকশনারি’ দিয়ে পরিচালনায় ফিরেছেন ব্রাত্য বসু। বুদ্ধদেব গুহের ‘বাবা হওয়া’ ও ‘স্বামী হওয়া’ উপন্যাসগুলোর অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। এটির চিত্রনাট্য লিখেছেন উজ্জ্বল চ্যাটার্জি ও ব্রাত্য বসু নিজে।

‘ডিকশনারি’র শুটিং হয়েছে কলকাতার পাশাপাশি বোলপুর ও শান্তিনিকেতনে। সিনেমাটিতে মোশাররফ করিম ও নুসরাত জাহান ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন আবির চ্যাটার্জি, পৌলমী বসু প্রমুখ।

সিনেমায় মোশাররফ করিমের চরিত্রের নাম মকরক্রান্তি চ্যাটার্জী। কঠোর দারিদ্রের বিরুদ্ধে লড়াই করে উঠে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা এক চরিত্রে দেখা যায় তাকে। যিনি ছেলেকে শিল্পপতি বানানোর স্বপ্ন দেখেন।

স্বামী-স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেন আবির চ্যাটার্জি ও নুসরাত জাহান। এতে পুরুলিয়ার বনবিভাগের কর্মকর্তা অশোক সান্যালের চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবির। মার্জিত, রুচিশীল, কথা কম বলা অশোক সরকারি বাংলোতে স্ত্রী স্মিতা ও মেয়ে চানুর সঙ্গে থাকেন। স্মিতার চরিত্রই সিনেমাতে ফুটিয়ে তুলেছেন নুসরাত জাহান। একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *