ট্রেডমিল কেনার সময় যেসব বিষয় খেয়াল করবেন

শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য প্রতিদিন ব্যায়াম করার বিকল্প নেই। আধুনিক সময়ে ঘরে বসে ব্যায়াম করার জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে ট্রেডমিল। ১৮১৮ সালে স্যার উইলিয়াম কিউবিট নামে একজন ইংল্যান্ডের সিভিল ইঞ্জিনিয়ার প্রথম ট্রেডমিল তৈরি করেন। কারাবন্দীদের শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য ট্রেডমিল তৈরি করেন তিনি। আর আজকের পৃথিবীতে মানুষ জিমে গিয়ে ট্রেডমিল ব্যবহার করছেন। ভাবা যায়! যা এক সময় কারাবন্দীদের শাস্তির কাজে ব্যবহৃত হতো সেটিই আজ পয়সা খরচ করে শরীরকে সুস্থ রাখার কাজে ব্যবহার করা হয়। তবে সাধ্যের মধ্যে নিজের বাসায়ও ট্রেডমিল কিনে রাখা অধিক নিরাপদ। কম খরচে ট্রেডমিল কেনার ক্ষেত্রে কিছু টিপস রয়েছে।

মূল্য জেনে নিন

কোনো কিছু কেনার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো মূল্য। ট্রেডমিল কেনার আগে বাজারে ট্রেডমিলের কেমন মূল্য রয়েছে সেটি জেনে নিন। বাজারে বিভিন্ন মূল্যে ট্রেডমিল পাওয়া যায়। বাজারে ৪২ হাজার থেকে ২ লাখ টাকায় একটি উন্নত মানের ট্রেডমিল কেনা যায়। মূল্য সম্পর্কে জেনে নিলে দোকানদাররা প্রতারণার সুযোগ কম পাবে। জেনে ও বুঝে তারপর এটি কেনা ভালো।

ওয়ারেন্টি বুঝে নিন

ট্রেডমিল কেনার ক্ষেত্রে ওয়ারেন্টি দেখে কিনতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত প্রিভেন্টিভ মেডিসিন নামের এক জার্নালে উল্লেখ করা হয়, দেশটির অধিকাংশ ব্যবহারকারী দিনের বিশেষ একটি সময় এটি ব্যবহার করেন। মাত্র ৫ শতাংশ মানুষ ঘরে বসে সবসময় ট্রেডমিল ব্যবহার করেন। তাই এটি কেনার সময় ওয়ারেন্টি যাচাই করে নেয়া জরুরি। সাধারণত ট্রেডমিলের ওয়ারেন্টি থাকে এক বছর।

অবস্থান ঠিক করুন

ট্রেডমিলটি কোথায় রাখবেন সেই অবস্থান ঠিক করে রাখুন। ঘরে ব্যবহারের জন্য ফোল্ডিং ট্রেডমিল কেনা উত্তম। কারণ ব্যায়াম করার পর সেটি আবার ফোল্ড করে রাখা যাবে। অনেকেই ঘরে ফোল্ডিং ট্রেডমিল কিনে সুফল পেয়েছেন। দিনের নির্দিষ্ট সময় ব্যায়াম করার পর সেটি আবার ফোল্ড করে রাখা যায়। এর মাধ্যমে ঘরে প্রশস্ত জায়গা পাওয়া যায়।

বারবার দেখুন

ট্রেডমিল কেনার আগে দোকানে সেটি বারবার দেখা উচিত। বিশেষজ্ঞরা বলেন, অন্তত ২ বার ট্রেডমিল দেখে নেয়া উচিত। বারবার দেখলে এতে কোনো সমস্যা রয়েছে কিনা সেটি উপলব্ধির সুযোগ পাওয়া যায়। বারবার দেখে নিলে প্রতারিত হওয়ার ঝুঁকি কমে। এর মাধ্যমে কোনো ত্রুটি থাকলে তাৎক্ষণিকভাবে তা সারিয়ে নেয়া যায়।

কিনে নিন

যখন সব বিষয় আপনার কাছে স্পষ্ট হয়ে যাবে তখন ট্রেডমিল কিনে ফেলুন। গুণগত মানসম্পন্ন ট্রেডমিল অনেক বছর পর্যন্ত স্থায়ী হয়। সেই কারণে এটি কেনার জন্য চিন্তাভাবনা করতে হয়। কেউ এক বছরে একাধিক ট্রেডমিল কেনে না। তাই এটি কেনার আগে যথেষ্ট চিন্তাভাবনার অবকাশ রয়েছে।