মুশফিক-রিয়াদসহ টিকা নেননি ৫ ক্রিকেটার

নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ২০ সদস্যের দল ঘোষিত হয়েছে গত শুক্রবার। এ তালিকার ছয় ক্রিকেটার আগেই করোনার প্রতিষেধক গ্রহণ করেছিলেন, আজ শনিবার করেছেন আরও আটজন। তবে করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়ার এ তালিকায় নেই মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদসহ শীর্ষ পাঁচ ক্রিকেটারের নাম।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের টিকাদান কর্মসূচি। রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল টিকা নিয়েছিলেন প্রথম দিনেই। জানিয়েছিলেন, টিকা দেওয়ার আগে কিছুটা ভীত ছিলেন তিনি। তবে টিকা নেওয়ার পর ভয় কেটে গেছে তার।

একই দিন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক জালাল ইউনুসের কাছে জানতে চাওয়া হয়, নিউজিল্যান্ড সফরের দলে থাকা সবাই কি টিকা নিচ্ছেন? তিনি জানান, এখানে চাপের সুযোগ নেই। কয়েকজন নিউজিল্যান্ড থেকে ফিরে এসে নিবেন, বাকিরা যাওয়ার আগেই টিকা নিয়ে নিবেন।

১৮ ফেব্রুয়ারি ৬ জন টিকা নেওয়ার পর আজ ২০ ফেব্রুয়ারি আরও ৮ ক্রিকেটার টিকা নেন। আগে তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, নাঈম শেখ, নাসুম আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদদের সঙ্গে শনিবার টিকা নেন মোহাম্মদ মিঠুন, আফিফ হোসেন ধ্রুব, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাজমুল হোসেন শান্ত ও হাসান মাহমুদ, আল আমিন হোসেন। সব মিলিয়ে টিকার আওতায় এলেন ১৫ ক্রিকেটার।

টিকার আওতায় আসতে বাকি রইলেন আর পাঁচ ক্রিকেটার। তারা হলেন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন কুমার দাস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও শেখ মেহেদী হাসান।

করোনা প্রতিষেধকের আওতায় আসতে বাকি এ ছয়জন কি টিকা ছাড়াই যাবেন নিউজিল্যান্ড? এ বিষয়ে বিসিবির কোনও কর্তা কথা বলতে রাজি হননি। তাদের প্রতিনিধি হয়ে আসা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমদ বলেন, ‘তাদের (বোর্ডের) মতে আজকে হয়তো আর জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা কেউ আসবেন না।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আজ (শনিবার) আমাদের এখানে জাতীয় দলের আরও আট (আসলে ৯) জন ক্রিকেটার টিকা গ্রহণ করেছেন। তারা সবাই সুস্থ আছে এবং তাদের পর্যবেক্ষণ সময় শেষ করার পরে সবাই হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন। এর মধ্যে ছিলেন সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজ, রুবেল, আফিফ, শরিফুল, শান্ত, হাসান মাহমুদ এবং মিঠুন। এই ৮ জন আজ টিকা নিয়েছেন, সঙ্গে ক্রিকেট বোর্ডের কিছু স্টাফও নিয়েছেন।’

বোর্ড সূত্র থেকে জানানো হয়েছে আপাতত শেষ হচ্ছে নিউজিল্যান্ড সফরের স্কোয়াডে থাকা খেলোয়াড়দের টিকাদান কর্মসূচি। ফলে মুশফিকরা ওশেনিয়ায় যাচ্ছেন করোনাভাইরাসের টিকা না নিয়েই।

এদিকে টিকা দেওয়ার পর ক্রিকেটারদের প্রায় ৩০ মিনিট পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে বলে জানান জামিল আহমদ। সর্বমোট ১৫ ক্রিকেটার সহ সাপোর্ট স্টাফ ও টিম ম্যানেজমেন্টের যারা টিকা নিয়েছেন, পরবর্তীতে তাদের কোনও সমস্যা হয়নি বলে জানান কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের এই পরিচালক।