জার্মান ব্লগার বেতজমানের ইসলাম গ্রহণ

খ্যাতিমান জার্মান কন্টেন্ট রাইটার, জনপ্রিয় ইউটিউবার ও ট্র্যাভেল ব্লগার ক্রিশ্চিয়ান বেতজমান সম্প্রতি ইসলাম গ্রহণ করেছেন। শুক্রবার (০৫ ফ্রেবুয়ারি) নিজের ইনস্টাগ্রামের এক পোস্টে তিনি ঘোষণা দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এই প্রসঙ্গে বেতজমান নিজের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও-ও আপলোড করেছেন।

ইসলাম গ্রহণ বিষয়ে বেতজমান তার পোস্টের দিয়ে ক্যাপশনে কাঘাঘরের ইমোজি দিয়ে লিখেছেন—

আমি ইসলাম গ্রহণ করেছি। ইসলামের ব্যাপারে আমি একটি গভীর সম্পর্ক অনুভব করেছি। আমি নিজের জন্য কিছু গভীরভাবে অনুভব করতে এবং আরও গভীরভাবে অন্বেষণ করতে চাই।
বেতজমান আরো লিখেছেন- আমি গত ডিসেম্বরে এই চ্যানেলটি শুরু করেছি। এরপর পাকিস্তানে প্রায় এক বছর কাটিয়েছি। এই সময়টিতে আমি অনেক অবিশ্বাস্য লোকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছি এবং ধর্ম ও জীবনধারা সম্পর্কে অনেক কিছু শিখেছি।

ক্রিশ্চিয়ান বেতজমান পোস্টে আরো বলেন, ইউরোপে বেড়ে ওঠা— ইসলাম শব্দটি সর্বদা নেতিবাচকতা, যুদ্ধ ও সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যুক্ত ছিল। পুরোপুরি সত্যি বলতে কি আমি এর আগে কখনো একজন ধার্মিক ছিলাম না। তাই লোকেরা পাছে কী ভাববে— তা নিয়ে আমি সত্যিই গুরুত্ব দিই না।

আমার শৈশবকালীন ‘বেস্ট ফ্রেন্ডরা’ মুসলমান ছিল। গভীর ভেতরের কথা হলো- আমরা সবাই একই জীবনাচারে অভ্যস্ত মানুষ। যেটাকে আমরা জীবন বলে থাকি। ইসলাম শান্তির ধর্ম। আমি এর গভীর সম্পর্ক উপলব্ধি করি। নিজের জন্য যা অনুসন্ধান করছি আমি তা আমি খুঁজে পেয়েছি।

ক্রিশ্চিয়ান বেতজমান পোস্টের সঙ্গে হাসিখুশি একটি ছবিও জুড়ে দিয়েছেন। প্রায় সাড়ে ১৬ হাজার মানুষ তাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

মন্তব্যের ঘরে সহযাত্রী ইউটিউবার শাম ইদ্রিস, জায়েদ আলী এবং মিনাল খান, জোয়া নাসির ও জারা নূর আব্বাসের মতো শোবিজের অনেকে বেতজমানের প্রশংসা করে অভ্যর্থনা জানিয়েছেন।

জোয়া নাসির নতুন রূপান্তর কামনা করে বলেছেন, ‘মাশাল্লাহ! আপনি যা কিছু কামনা করেন এবং তার চেয়েও বেশি কিছু আল্লাহ আপনাকে দান করুন। ভাগ্যবান তারা— যারা তাদের আহ্বান খুঁজে পান।’

জায়েদ মন্তব্য করেছেন, ‘স্বাগতম আমার ভাই! এই যাত্রা আপনার পক্ষে সহজ হোক এবং আল্লাহ আপনাকে দুনিয়ার সব সুখ দান করুন।’

শাম ইদ্রিস বেতজমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। মিনাল মন্তব্য করে লিখেছেন- মাশাআল্লাহ, সুন্দর, সুন্দর, সুন্দর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *