বলিউডের নায়করা বিমানবন্দর থেকে কোথায় উধাও হন

বিমানবন্দরে তাদের দেখা যায় একসঙ্গেই। এরপর বেমালুম উধাও। সিদ্ধার্থ মালহোত্রা-কিয়ারা আদভানি, ঈষান খাট্টার-অনন্যা পান্ডের ক্ষেত্রে এমন ঘটনা দেখা গেছে। একসঙ্গে মুম্বাই বিমানবন্দরে দেখা গেলেও মালদ্বীপ নামার পর উধাও সিদ্ধার্থ বা ঈষাণ। ঘটনা কী? জেনে নেওয়া যাক।

দীর্ঘ লকডাউনে বলিউডের নতুন জুটির খবর পাওয়া যায়নি। সিনেমার শুটিং বন্ধ, নেই নতুন সিনেমা মুক্তির প্রিমিয়ার। নেই কোনো পার্টিও। মূল কথা যেসব জায়গায় তারকাদের একসঙ্গে দেখা যেতে পারে সেগুলো ছিল বন্ধ। লকডাউন ওঠে যাওয়ার পর ধীরে ধীরে বাড়ির বাইরে দেখা যেতে থাকে বলিউড তারকাদের। দমবন্ধ পরিবেশ থেকে মুক্তির স্বাদ নিতে একে একে রওনা হন ছুটি কাটাতে।

ভিসার ঝামেলা নেই, করোনা নিয়ে কড়াকড়ি নেই, সে কারণে এবার বেশিরভাগ বলিউড তারকাই ছুটি কাটাতে যান মালদ্বীপে। ভারত মহাসাগরের জনপ্রিয় এই পর্যটন গন্তব্যে গিয়েছেন ক্যাটরিনা কাইফ, আলিয়া ভাট, সোনাক্ষী সিনহা, সারা আলী খানসহ অনেক তারকাই।

তবে এরমধ্যে বিশেষ ব্যতিক্রম সিদ্ধার্থ মালহোত্রা-কিয়ারা আদভানি আর ঈষাণ খাট্টার ও অনন্যা পান্ডে। গেল বছরের শেষের দিকে নতুন বছর উদযাপন করতে মালদ্বীপে যান সিদ্ধার্থ-কিয়ারা। ৩০ ডিসেম্বর মুম্বাই বিমানবন্দরে একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হন তারা। দুজনকে পাশাপাশি হাঁটতে দেখা যায়, পাপারাজ্জিদের ক্যামেরা থেকে কেউই নিজেদের লুকানোর চেষ্টা করেননি। কিন্তু এর পরেই ঘটে আশ্চর্য ঘটনা। মালদ্বীপে গিয়ে একের পর এক ছবি দিতে থাকেন কিয়ারা, যে গুলোর একটাতেও নেই সিদ্ধার্থ! বেচারা গেলো কোথায়?

কথিত প্রেমিককে আড়াল করতেই যে অভিনেত্রী এমন কাণ্ড করেছেন তা কারো বুঝতে বাকি থাকে না। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ট্রলও হয়। যা দেখে পরদিন কিয়ারা নিজের একটা ছবি দিয়ে লেখেন, ‘একা একা ঘোরা আর একা একা ছবি তোলা।’ যা দেখে ফের বিদ্রুপ শুরু হয়। ফেরার সময়ও একই কাণ্ড। মুম্বাইতে গোলাপি রঙের পোশাকে দেখা যায় দুই তারকাকে। ভক্তদের মনে প্রশ্ন জাগে যাওয়া-আসার সময় বিমানবন্দরে দেখা গেলো সিদ্ধার্থকে, বাকি সময় কোথায় ছিলেন তিনি?

এ ঘটনার পর অবশ্য বেশ সাবধানী হন দুই তারকা। করণ জোহরের পার্টি বা বরুণ ধাওয়ানের বিয়ে কোথাও তাদের দেখা যায়নি। কিয়ারা ও সিদ্ধার্থের প্রেম নিয়ে অনেকদিন ধরে গুঞ্জন থাকলেও এই আলোচনা শুরু হয় কিছুদিন আগে। জনপ্রিয় কমেডি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’তে ‘লক্ষ্মী’ সিনেমার প্রচারে এসেছিলেন অক্ষয় কুমার ও কিয়ারা আদভানি। সেখানেই সিদ্ধার্থের সঙ্গে প্রেমের ইঙ্গিত করে অক্ষয় কিয়রাকে বলেন, ‘এ সিদ্ধান্তওয়ালী লাড়কি [নীতি মেয়ে চলা মেয়ে]।’ কিয়ারা যা শুনে বেশ অপ্রস্তুত হন।

তাদের মতো প্রায় একই ধরণের কাণ্ড ঘটান ঈষান খাট্টার ও অনন্যা পান্ডে। বিখ্যাত ইরানি পরিচালক মাজিদ মাজিদিও ছবিতে কাজ করা ঈষান সমালোচকদের বেশ প্রিয় পাত্র। অন্যদিকে চাঙ্কি পান্ডে কন্যা অনন্যা অভিনয় দিয়ে এখনো সমালোচকদের মন ভরাতে পারেনি। ‘কালি পেলি’ শুটিংয়ের সময় তাদের প্রেমের গুঞ্জন প্রথম শোনা যায়। সিদ্ধার্থ ও কিয়ারা যখন মালদ্বীপ যান প্রায় একই সময়ই দ্বীপ দেশটিতে ছিলেন ঈষান ও অনন্যা।

তারাও একসঙ্গে মুম্বাই বিমানবন্দরে ক্যামেরাবন্দি হন, মালদ্বীপে গিয়ে ‘লাপাত্তা’ ঈষান। এরপর কিয়ারাকে দেখেই কিনা ‘একা একা’ ছবি তুলে পোস্ট করতে থাকেন অনন্যা। ২০২১ সাল সবে শুরু হয়েছে। বলিউডে সিনেমা মুক্তি, পার্টি শুরু হয়ে গেছে। সিদ্ধার্থ-কিয়ারা, ঈষান-অন্যন্যার মতো এমন অনেক প্রেমিক জুটির লুকোচুরি নিশ্চিতভাবে বছরজুড়ে চলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *