নেটফ্লিক্সে সেরা ১০ কোরিয়ান সিরিজ

কোরিয়ান কন্টেন্টের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে। সিনেমার পাশাপাশি এখন ওয়েব সিরিজের দিকেও ঝুঁকছেন দর্শকরা। সে কারণে এদিকে বিশেষ নজর দিয়েছে নেটফ্লিক্স। গত বছর কোরিয়ান প্রোডাকশন ও সম্প্রচারমাধ্যমের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে এই ওটিটি প্লাটফর্ম। চুক্তি অনুযায়ী ২০২১ সালে অনেকগুলো কন্টেন্ট মুক্তি দেবে নেটফ্লিক্স। তবে এই স্ট্রিমিং প্লাটফর্মের ঝুলিতে আগে থেকে রয়েছে অনেকগুলো জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ। এরমধ্যে সেরা ১০ সিরিজ নিয়ে এই আয়োজন।

ক্র্যাশ ল্যান্ডিং অন ইউ
টর্নেডোর আঘাতে বিপর্যস্ত এক নারীর জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে কেন্দ্র এর এই সিরিজ। দক্ষিণ কোরিয়ার য়ুন সে রি নামে সেই নারী একদিন প্যারাগ্লাইডিং করছিলেন। হঠাৎ শুরু হয় টর্নেডোর আঘাত। এমন সময় তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার থেকে ছিটকে পড়েন উত্তর কোরিয়ার এক জঙ্গলে। সেখানে রি জেওং-হেইয়ক নামে এক সামরিক কর্মকর্তা খুঁজে পান তাকে। য়ুন সে রিকে নিজে দেশে ফিরিয়ে দিতে চেষ্টা করতে থাকেন জেওং-হেইয়ক। এরমধ্যে প্রেম হয়ে যায় তাদের। এভাবে এগিয়ে যায় ‘ক্র্যাশ ল্যান্ডিং অন ইউ’-এর ঘটনা। এপিসড সংখ্যা ১৬। আইএমডিবি রেটিং ৮.৭/১০।

ইটাওন ক্লাস
এক সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় পার্ক স্যা রো ইয়িয়ের বাবার। এরপর তিনি খাদ্য প্রতিষ্ঠান ‘জাঙ্গা গ্রুপ’কে ধ্বংস করার জন্য মিশনে নামেন। কিন্তু ধরা পড়ে সিইও জাং দে হের কাছে। এই ঘটনায় স্কুল থেকে বের করে দেওয়া হয় স্যা রো ইয়িকে। এমনকি তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। কারাগার থেকে ফিরে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করেন সিরিজের নায়ক। অল্প সময়ের মধ্যে কোরিয়ার প্রভাবশালী একজন হয়ে যান তিনি। এরপর শুরু হয় তার প্রতিশোধের পালা। এপিসড সংখ্যা ১৬। আইএমডিবি রেটিং ৮.২/১০।

মিস্টার সানশাইন
ইগুনে চই ছোটবেলায় বাবা-মাকে হারান। এক অভিজাত পরিবার হত্যা করে তাদের। এরপর এক যুদ্ধ জাহাজে ১৮৭১ সালে আমেরিকা পাড়ি দেয় ছোট্ট ইগুনে। এই ঘটনার পর কয়েক দশক কেটে যায়। ইগুনে চই তখন মার্কিন নৌ বাহিনির ক্যাপ্টেন। সেখানে এক রাজনৈতিক মিশন শেষে কোরিয়ায় ফেরেন তিনি। সেখানে এক অভিজাত মেয়ের প্রেমে পড়েন তিনি। গো এ্যা শিন নামের সে মেয়ে কোরিয়ার স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে যুক্ত। এভাবে এগিয়ে যায় সিরিজের কাহিনী। সিরিজটি নির্মাণে ব্যয় হয় ৩৬ মিলিয়ন ডলার। আইএমডিবি রেটিং ৮.৮/১০।

কিংডম
এক রাজাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না ১০ দিন ধরে। গুজব রটেছে মারা গেছেন তিনি। রাজপুত্র লি চ্যাং এই রহস্য উন্মোচনের মিশন শুরু করেন। একসময় তিনি লক্ষ্য করেন রাজ্যের অনেকে প্লেগ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। সবার মধ্যে এই সংক্রমণ রোগ ছড়িয়ে যেতে থাকে। এই রহস্য উদঘাটন শুরু হয় একসময়। এমনই গল্প নিয়ে ‘কিংডম’ সিরিজ।

হোয়েন দ্য ক্যামেলিয়া ব্লুমস
ডং বায়েক ক্যামেলিয়া নামে একটি বার রেস্তোঁরা চালু করে অংসাং শহরে। এ কারণে তাকে ঘিরে অন্য নারীদের মধ্যে কানাঘুষা হতে থাকে। কারণ একজন সিঙ্গেল মা হয়ে বার রেস্টুরেন্ট দিয়েছেন তিনি। হ্যাং ইয়োং সিং নামে এক পুলিশ অফিসার প্রেমে পড়ে ডংয়ের। ঘটনা এগুতে থাকে তাদের প্রেম নিয়ে। এরমধ্যে ইয়োং সিং তথ্য পান ডং এক সিরিয়াল খুনির পরবর্তী টার্গেট। এখানে এসে কাহিনীর মোড় ঘুরে যায়। ৪০ এপিসোডের সিরিজটির আইএমডিবি রেটিং ৮/১০।

হাই বাই, মামা
পাঁচ বছর আগে এক দুর্ঘটনায় মারা যান চা য়ু রি। এরপর তিনি ভূত হয়ে বসবাস শুরু করেন। একদিন পুনর্জন্ম হয় তার। ৪৯ দিনের জন্য মানুষ রূপে থাকার সুযোগ পান। সেই সময় দেখা করতে যান তার পাঁচ বছরের মেয়ে ও স্বামী জো গ্যাং হুয়ের সঙ্গে। ফিরে এসে দেখেন তার স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন। এভাবেই এগিয়ে যায় সিরিজের গল্প। এপিসোড সংখ্যা ১৫। আইএমডিবি রেটিং ৮.৫/১০।

সিগন্যাল
ছোবেলার বন্ধুর হত্যা নিয়ে ক্রিমিনাল প্রোফাইলার পার্ক হেয় ইয়ং একটি মামলার তদন্ত শুরু করেন। কারণ এতদিনেও পাওয়া যায়নি হত্যাকারীকে। একদিন তিনি এক রহস্যময় ওয়াকি টকি খুঁজে পান। যা নিয়ে গোয়েন্দা লি জে হেনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এরমধ্য দিয়ে মামলা সমাধানের সুযোগ পান পার্ক হেয় ইয়ং। দক্ষিণ কোরিয়ার এক সত্য ঘটনা নিয়ে নির্মিত এই ওয়েব সিরিজ। পরিচালনা করেছেন কিম ওন শেয়োক। এপিসোড সংখ্যা ১৬। আইএমডিবি রেটিং ৮.৬/১০।

প্রিজন প্লেবুক
দক্ষিণ কোরিয়ার তারকা পিচার কিম জে হেয়কের কারাদণ্ড নিয়ে নির্মিত এই ওয়েব সিরিজ। তার বোনকে যৌন হয়রানি করায় একজনকে হত্যাচেষ্টার কারণে তাকে এই শাস্তি দেওয়া হয়। কারাগারে তার জীবন ও কারাগারের অবস্থা দেখানো হয়েছে এখানে। ডার্ক কমেডি ঘরাটার সিরিজটি নির্মাণ করেছেন শিন ওন হু। এপিসোড সংখ্যা ১৬। আইএমডিবি রেটিং ৯.১ /১০।

স্ট্রেঞ্জার
উচ্চ পদস্থ এক উকিলের ঘনিষ্ঠ ব্যাক্তির হত্যাকে কেন্দ্র করে সিরিজটি নির্মিত হয়েছে। পুলিশ কর্মকর্তা হে য়ু জিন মামলাটি সমাধানের জন্য হাতে নেন। খুনিকে ধরার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেন। এমন ঘটনায় এগিয়ে যাবে সিরিজের গল্প। বায়েকস্যাং আর্টস অ্যাওয়ার্ড গ্র্যান্ড প্রাইজ অর্জন করে সিরিজটি। আইএমডিবি রেটিং ৮.৬/১০।

দ্য রিপ্লাই সিরিজ
দ্য রিপ্লাই সিরিজের রয়েছে তিনটি সিজন। একদল বন্ধু ও তাদের পরিবারের মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে নির্মিত এটি। সিওল শহরে তাদের সংগ্রাম উঠে এসেছে এখানে। সিরিজটি নির্মাণ করেছেন শিন ওন-হো। এপিসোডের সংখ্যা ৫৭। আইএমডিবি রেটিং ৯.১/১০।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *