যুক্তরাজ্যের মসজিদে করোনার টিকা কার্যক্রম

করোনার টিকাকেন্দ্র হিসেবে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের একটি মসজিদে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রতিদিন প্রায় পাঁচ শতাধিক লোককে টিকা এখানে দেওয়া হয়। টিকাকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার হওয়া যুক্তরাজ্যের প্রথম মসজিদ এটি।

ব্রিটেনজুড়ে বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর) শুরু হওয়া ৬৫টি নতুন করোনা টিকাকেন্দ্রের একটি বার্মিংহামের আল-আব্বাস ইসলামিক সেন্টার। ইসলামিক সেন্টারটি করোনা টিকা গ্রহণে মুসলিম জনগোষ্ঠীকে উৎসাহিত করার কাজও করছে।

অন্যদিকে যুক্তরাজ্যের ইমামরা করোনাবিষয়ক তথ্যবিভ্রাট রোধে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছেন। কারণ, যুক্তরাজ্যে বসবাসরত প্রায় ৩০ লাখ মুসলিম জনগোষ্ঠীকে করোনার টিকায় শূকরের জেলেটিন বা অ্যালকোহল আছে বলে— একটি ভিত্তিহীন তথ্য কিছু ধর্মীয় নেতা প্রচার করেন।

ভুল তথ্যটি রোধে শুক্রবার জুমার খুতবায় করোনার টিকা নিরাপদ বলে তারা প্রচারণাও চালান। এছাড়াও দেশটির মসজিদ-ইমামদের সংস্থা ন্যাশনাল অ্যাডভাইজারি বোর্ড (এআইএনএবি)-এর প্রধান ক্বারি আসিম জনপরিসরে টিকাকে ইসলামী আইনসম্মত বলে অভিহিত করেন।

আল-আব্বাস ইসলামিক সেন্টারের ইমাম শায়খ নুরু মুহাম্মদ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, মুসলিম স্কলাররা আমাদের টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করছেন। কারণ ইসলামে মানবজীবনের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। ইসলামে টিকা নিষিদ্ধ বলে যে ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে— তা বন্ধে এই কার্যক্রম আমাদের সহায়তা করবে বলে আমার বিশ্বাস।

মসজিদের ট্রাস্টি ও বার্মিংহাম ক্লিনিকেল কমিশনিং গ্রুপের সদস্য ডা. রিজওয়ান আলিদিনা বলেন, এই সময় মুসলিমরা খুবই কম টিকা গ্রহণকারী জনগোষ্ঠীর অন্যতম। তবে মসজিদকে টিকা কেন্দ্র হিসেবে গ্রহণ করায় কিছুটা ভালো সাড়া পাওয়া গেছে। প্রতিদিন তিনশ থেকে পাঁচশ লোক এখানে এসে টিকা নিচ্ছে।

ব্রিটিশ ইসলামিক মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য ইমরান কাউসার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, সবার মধ্যে একটা অপপ্রচার চলছে— ‘করোনা মহামারি ফাইভ জি নেটওয়ার্কের সাহায্যে সবার মধ্যে সংক্রমিত হয়েছে। টিকা আংশিক বা পুরোপুরিভাবে দেহের ডিএনএ পরিবর্তন করে দিতে পারে।’ কিন্তু আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি, এ ধরনের সব তথ্য ভিত্তিহীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *