আলু নয়, কলার চিপস

চিপস শব্দটি শুনলেই আলুর নাম মনে আসে সবার আগে। কিন্তু শুধু আলু নয়, চিপস তৈরি করা যায় কাঁচকলা দিয়েও। যারা শিশুকে সবজি খাওয়ানো নিয়ে দুশ্চিন্তা করেন, তাদের জন্য একটি সহজ সমাধান হতে পারে কাঁচকলার চিপস। মুচমুচে এই মুখরোচক খাবার সবার কাছেই পছন্দের। এটি তৈরি করা যায় খুব সহজে। তৈরিতে উপকরণ এবং উপাদান দুটোই কম প্রয়োজন হয়।

কাঁচকলার পুষ্টিগুণ

প্রায় সব ধরনের সবজিই আমাদের শরীরের নানা উপকারে লাগে। এর মধ্যে অন্যতম হলো কাঁচকলা। এতে আছে পর্যাপ্ত পটাশিয়াম যা আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সাহায্য করে। এটি শরীরে দ্রুত শক্তি জোগায়। উপকারী এই সবজিতে আছে ভিটামিন বি সিক্স ও ভিটামিন সি। এই দুই উপাদান আমাদের কোষকে সংগঠিত করে। কাঁচকলায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট নানা অসুখ থেকে আমাদের দূরে থাকতে সাহায্য করে। এতে থাকা ফাইবার ক্ষতিকর ফ্যাট কোষগুলো দূর করে সহজেই। তাই নিয়মিত কাঁচকলা খেলে স্থুলতার ভয় থাকে না।

কাঁচকলার চিপস তৈরি করতে যা লাগবে

কাঁচকলা- ২টি
লবণ- স্বাদ অনুযায়ী
হলুদ গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
লালমরিচের গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
বেসন- ১/২ কাপ
কর্ন ফ্লাওয়ার- ২ চা চামচ
জিরা গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
গোলমরিচের গুঁড়ো- সামান্য
তেল- ভাজার জন্য।

যেভাবে তৈরি করবেন

কাঁচকলার খোসা ছাড়িয়ে পাতলা পাতলা পাতলা কেটে নিন। কাটার সঙ্গে সঙ্গে লবণ ও হলুদ মেশানো পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। লবণ ও হলুদ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন। এতে করে কলা কালো হয়ে যাবে না।

একটি পরিষ্কার পাত্রে হলুদের গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া, জিরা গুঁড়া ও কর্ন ফ্লাওয়ার ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। অল্প পানিতে বেসন গুলিয়ে তা মসলার মিশ্রণে ঢেলে দিন। এবার কেটে রাখা কলার টুকরোগুলো এই মিশ্রণে ভালোভাবে কোটিং করে নিন।

কড়াই তেল গরম হতে দিন। তেল গরম হলে ডুবো তেলে মুচমুচে করে ভেজে নিন। বাদামি রং হলে তুলে ফেলুন। চিপসের বাড়তি তেল ঝরিয়ে ফেলার জন্য কিচেন টিস্যুর ওপর বিছিয়ে দিন। এর ওপর সামান্য গোল মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দিলেই তৈরি চমৎকার কলার চিপস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *