ইতালিয়ান কাপের দুয়ারে রোনালদোরা

সান সিরোয় প্রথম লেগে জিতেই ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছিল জুভেন্তাস। নিজেদের মাঠে ফিরতি লেগে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রয়ে নিশ্চিতই হয়ে গেছে ফাইনাল। ন্যাপোলি-আটালান্টার মধ্যকার অপর সেমিফাইনাল থেকে জয়ী দলের বিপক্ষে শিরোপার চূড়ান্ত লড়াইয়ে মুখোমুখি হবেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোরা।

প্রথম লেগে জুভেন্তাস ২-১ গোলে জেতায় ফাইনালে যেতে হলে ইন্টারকে জিততে হতো ২-০ কিংবা তার চেয়েও বেশি ব্যবধানে। ২-১ হলে খেলা গড়াতো অতিরিক্ত সময়ে, আর জুভেন্তাস ফাইনালে খেলতো ১-০ ব্যবধানে হেরে গেলেও।

এমন সমীকরণের সামনে নিজেদের মাঠে বুধবার রাতে ম্যাচের প্রথম থেকেই বলের দখলে এগিয়ে ছিল কোচ আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যরা। ইন্টার মিলান বেছে নিয়েছিল প্রতি-আক্রমণের কৌশল। তাতে কোচ অ্যান্তোনিও কন্তে সফলও ছিলেন কিছুটা। শুধু গোলের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারলেই বর্তে যেত নেরাজ্জুরিরা।

২৫ মিনিটে ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের করা ফ্রি কিকে রোমেলু লুকাকুর আলতো ছোঁয়া বেরিয়ে যায় লক্ষ্যের একটু বাইরে দিয়ে। সুবিধাজনক অবস্থানে থাকায় জুভেন্তাসও এদিন গড়ে তুলেছিল অভেদ্য এক রক্ষণ দেয়াল। সেই দেয়ালে আটকেই তো প্রথম আধঘণ্টায় আরও দুবার গোলের সুযোগ খুইয়েছে সফরকারী ইন্টার। কর্নার থেকে পাওয়া সুযোগে এরিকসেনের শট প্রথমে রুখেছে জুভেন্তাস রক্ষণ, লাওতারো মার্টিনেজের ফিরতি চেষ্টাটাও পেয়েছে একই পরিণতি।

স্বাগতিকরা উল্লেখযোগ্য সুযোগ পেয়েছিল বিরতির ঠিক আগে। বক্সের একটু ভেতরে ক্রিশ্চিয়ানোর শট প্রথমে রুখেছে ইন্টার রক্ষণ, এর কয়েক সেকেন্ড পর বক্সের ভেতরে সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদো। তবে কাছের পোস্ট দিয়ে তার গোলের চেষ্টাটা ইন্টার গোলরক্ষক সামির হান্দানোভিচ রুখেছেন ডান পায়ের দারুণ এক সেভে। ফলে গোলশূন্যতায় শেষ হয় প্রথমার্ধ।

বিরতির পরও জুভে রক্ষণে চাপ ধরে রেখেছিল ইন্টার। নিকো বারেলার বাড়ানো বলে আচরাফ হাকিমির শট বেরিয়ে যায় ক্রসবারের একটু উপর দিয়ে। ৫৮ মিনিটে জুভে রক্ষণের ভুলে লাওতারো মার্টিনেজের শট ঠেকান গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন।

এরপর সময় যতো গড়িয়েছে, জুভেন্তাস রক্ষণাত্মক হয়েছে আরও। তাতে মিলেছে সফলতাও। গোলশূন্য ড্র যথেষ্ট ছিল দলটিকে কোপা ইতালিয়ার ফাইনালে তুলে দেয়ার জন্য।

প্রতিযোগিতার অন্য সেমিফাইনালে বৃহস্পতিবার রাতে মুখোমুখি হবে ন্যাপোলি আর আটালান্টা। গোলশূন্য ড্রয়ে শেষ হয়েছিল প্রথম লেগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *