বেনজেমায় রক্ষা খর্বশক্তির রিয়ালের

নিত্যনতুন চোটের খবরে রিয়াল মাদ্রিদের স্কোয়াড নিয়েই জেগেছিল শঙ্কা। কোচ জিনেদিন জিদানকে নামাতে হলো অদ্ভুত এক একাদশ। তবে ‘টালিসম্যান’ কারিম বেনজেমার কল্যাণে জয়টা ঠিকই তুলে নিয়েছে লা লিগা শিরোপাধারীরা, গেটাফেকে হারিয়েছে ২-০ গোলে।

নিজেদের মাঠ আলফ্রেডো ডি স্টেফানোয় ম্যাচটির আগে স্কোয়াড নিয়ে বিপদেই পড়েছিলেন কোচ জিদান। সার্জিও রামোস, এডেন হ্যাজার্ড, ফেদে ভালভার্দে সহ আট জন চোট নিয়ে বাইরে চলে গিয়েছিলেন। আর পাঁচ হলুদ কার্ড দেখে ফেলায় গেটাফের বিপক্ষে ম্যাচে নিষিদ্ধ ছিলেন টনি ক্রুস।

নিয়মিত একাদশের একটা বড় অংশকে ছাড়া কোচ জিদানকে বেছে নিতে হয় অভিনব এক একাদশ। দুই লেফটব্যাক মার্সেলো ও ফেরলান্দ মন্ডিকে খেলান একসঙ্গে, যদিও মার্সেলো খেলেছেন মাঝমাঠে। এদিকে প্রথম একাদশে অভিষেক হয় রিয়াল মাদ্রিদ কাস্তিয়ার খেলোয়াড় মারভিন পার্কের।

এতোসব পরিবর্তনে মানিয়ে নিতেও তো কিছুটা সময় চাই! প্রথমার্ধে তাই বলের দখলে এগিয়ে থাকলেও আক্রমণে বেশ ধুঁকেছে রিয়াল। গোলহীনভাবে শেষ হয় প্রথমার্ধ।

বিরতির পর নেমেই গোলের দারুণ দুই সুযোগ পেয়েছিল রিয়াল। মার্কো অ্যাসেন্সিওর পাস থেকে প্রতিপক্ষ বিপদসীমায় ঢুকে বেনজেমার নেয়া শট দারুণভাবে ঠেকান গেটাফে গোলরক্ষক। ফিরতি সুযোগে ক্যাসেমিরোও গোলের সুযোগ হারান প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার বরাবর মেরে।

এর কিছু পরেই ম্যাচে নিজেদের প্রথম সুযোগ পায় সফরকারীরা। তবে মার্ক কুকুরেয়ার চেষ্টা লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে গোলবঞ্চিতই থাকে গেটাফে।

তবে বেনজেমা এর মিনিট দুয়েকের মধ্যেই জবাব দেন। ৬০ মিনিটে ভিনিসিয়াসের ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে রিয়ালকে এগিয়ে দেন ফরাসি এ ফরোয়ার্ড, চলতি মৌসুমে এটি ১১তম গোল তার।

৬৬ মিনিটে ‘মিডফিল্ডার’ মার্সেলো ক্রস বাড়ান ছয় গজের বক্সে থাকা মন্ডিকে, আলতো টোকায় করা তার গোল ম্যাচের সব অনিশ্চয়তাই দূর করে দেয়।
২-০ ব্যবধানের এ জয়ে ২২ ম্যাচ শেষে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে রিয়াল মাদ্রিদ। আর এক ম্যাচ কম খেলে রিয়ালের চেয়ে তিন পয়েন্ট কম অর্জন করা বার্সেলোনা একধাপ পিছিয়ে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থানে নেমে গেছে। শীর্ষে থাকা অ্যাটলেটিকো অবশ্য সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে ড্রয়ের পরও আছে রিয়াল-বার্সার নিরাপদ দূরত্বে। ২০ ম্যাচে ৫১ পয়েন্ট অর্জন দলটির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *