পাল্টে গেল সিটি-লিভারপুলের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ভেন্যু

জার্মানিতে চলছে কড়া লকডাউন। বিদেশীদের দেশে ঢোকার ক্ষেত্রে আছে কঠোর নিষেধাজ্ঞা। সে নিষেধাজ্ঞার খড়গেই পড়েছে ম্যানচেস্টার সিটি আর লিভারপুলের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলর ম্যাচ। বরুসিয়া মুনশেনগ্লাডবাখ আর রাজেন বলস্পোর্ট লাইপজিগের বিপক্ষে পেপ গার্দিওলা আর ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের ‘অ্যাওয়ে’ ম্যাচদুটো সরে গেছে হাঙ্গেরিতে।

মুনশেনগ্লাডবাখের মাঠে সিটির শেষ ষোলর লড়াইটি হওয়ার কথা ছিল আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি। আর ১৬ ফেব্রুয়ারি লাইপজিগের মাঠে খেলার কথা ছিল লিভারপুলের। তবে করোনাভাইরাসের ছোবল লেগেছে ম্যাচ দুটিতে।

নতুন করে, নতুন রূপে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের কারণে জার্মানি মানছে কড়া লকডাউন। দেশে জনমানুষের চলাচল সীমিত করে দেয়া হয়েছে। বাঁধ দিয়েছে বিদেশীদের, বিশেষ করে ইংল্যান্ড সহ বেশ কিছু দেশ থেকে আসা নাগরিকদের দেশে ঢোকাতেও। আর এ নিয়ম দেশটিতে মানা হবে অন্তত ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

তবে দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি যেমন চলছে তাতে সে মেয়াদটা যে বাড়বে তা হলফ করে বলা যায়। এ কারণেই ম্যাচদুটোর ভেন্যু সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে উয়েফা। নতুন ঘোষণা অনুসারে ম্যাচদুটো লিভারপুল আর সিটি খেলবে হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টের পুসকাস অ্যারেনায়।

ম্যাচদুটো আয়োজন নিয়ে বেশ ফ্যাসাদেই পড়েছিল উয়েফা। ভাবনা ছিল নিজেদের মাঠেই সিটী-লিভারপুলকে ‘অ্যাওয়ে’ ম্যাচে খেলানোরও। তবে হাঙ্গেরি এগিয়ে আসায় সে ভাবনা থেকে মুক্তি মিলেছে সংস্থাটির। এজন্যে হাঙ্গেরিয়ান ফুটবল ফেডারেশনকে ধন্যবাদ জানাতে ভোলেনি উয়েফা।

ভেন্যু পরিবর্তন হলেও ম্যাচের সূচি পেছাচ্ছে না কোনো দলেরই। পূর্বনির্ধারিত সূচি মেনে ইংলিশ চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল লাইপজিগের মুখোমুখি হবে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি, আর ম্যানচেস্টার সিটি মুনশেনগ্লাডবাখের বিপক্ষে লড়বে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *