চুল লম্বা করতে চান?

চুল পড়ে যাচ্ছে, চুল লম্বা হচ্ছে না- এসব সমস্যার মূল কারণ হলো আপনার শরীরে সঠিকভাবে পুষ্টি পৌঁছাচ্ছে না। এছাড়াও নিজের প্রতি আপনার উদাসীনতা একটি বড় কারণ হতে পারে। সবার চুল সমানভাবে বাড়ে না। তবে যত্ন নিলে যে কারও চুল বাড়তে পারে। তাই চুল লম্বা না হতে চাইলে নিতে হবে বাড়তি যত্ন। খেতে হবে স্বাস্থ্যকর সব খাবার। খাবারের তালিকা থেকে ভাজাভুজি বাদ দিয়ে তাজা সবজি ও ফলমূল খেতে হবে। নিয়মিত যত্ন পেলে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হবে। তাই লম্বা চুল পেতে হলে মেনে চলতে হবে কিছু বিষয়।

ট্রিম করুন

অনেকে ভাবেন, চুল বারবার কাটলে চুল সহজে বড় হয় না। আসলে পুরো বিষয়টি উল্টো। বরং ঘন ঘন চুলের আগা ছাঁটালে চুল দ্রুত বাড়ে। সেজন্য পার্লারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। বাড়িতেই চুলের আগা ছেঁটে নিতে পারেন। একে বলা হয় ‍চুল ট্রিম করা। দেড় থেকে দুই মাস পরপর চুল ট্রিম করুন। এতে চুলের আগা ফেটে যাওয়ার ভয় থাকবে না। সেইসঙ্গে বাড়বে চুল লম্বা হওয়ার হারও।

সাপ্লিমেন্টের ব্যবহার

চুল স্বাভাবিকভাবে পর্যাপ্ত পুষ্টি না পেলে করতে হবে সাপ্লিমেন্টের ব্যবহার। খেতে হবে সঠিক ভিটামিন। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবার ও সাপ্লিমেন্ট খেতে পারেন। এসব উপাদান চুল দ্রুত বাড়তে সাহায্য করে। বায়োটিনের মতো সাপ্লিমেন্ট চুল সুস্থ ও সুন্দর রাখতে সাহায্য করে। তবে যেকোনো সাপ্লিমেন্ট খাওয়ার আগে একবার চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারলে ভালো।

শ্যাম্পু বাছাই

চুল ভালো রাখার জন্য সঠিক শ্যাম্পু বাছাই করা জরুরি। কারণ শ্যাম্পু যদি আপনার চুলের ধরন অনুযায়ী না হয়, তখন উপকারের বদলে মিলবে অপকার। চুল পরিষ্কার করার জন্য এমন শ্যাম্পু বেছে নিন যা আপনার চুলে পুষ্টি পৌঁছে দিতে পারবে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো কাজ করে ভেষজ শ্যাম্পু। আপনার চুলের ধরন অনুযায়ী বেছে নিন সঠিক শ্যাম্পুটি। কড়া গন্ধ ও রং সমৃদ্ধ শ্যাম্পু এড়িয়ে চলুন।

ঠান্ডা পানির ব্যবহার

চুল পরিষ্কারের জন্য গরম পানি ব্যবহার করবেন না ভুলেও। এর বদলে ব্যবহার করুন ঠান্ডা পানি। নিয়মিত ঠান্ডা পানি দিয়ে পরিষ্কার করলে সহজেই পাবেন লম্বা ও উজ্জ্বল চুল। শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহারের পর কিছুটা সময় চুল ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এতে চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখা সহজ হবে। আপনি যদি চুল পরিষ্কারের সময় খুব বেশি গরম পানি ব্যবহার করেন তবে এর আর্দ্রতা হারিয়ে রুক্ষ হয়ে যাবে। সেখান থেকে দেখা দেবে চুল পড়া ও চুল ভেঙে যাওয়ার সমস্যা।

স্টাইলিং প্রোডাক্ট কম ব্যবহার করা

চুলে স্টাইলিং প্রোডাক্ট যত কম ব্যবহার করা যায় তত ভালো। অনেকে কোঁকড়া চুল সোজা করার জন্য চুল আয়রন করে থাকেন। আবার দীর্ঘ মেয়াদীভাবে চুল সোজা রাখার জন্যও নানা কেমিক্যাল দ্রব্য চুলে ব্যবহার করে থাকেন। যার কোনোটিই চুলের জন্য উপকারী নয়। সাময়িকভাবে দেখতে সুন্দর লাগলেও সেসব উপাদান ব্যবহারের ফলে চুল ভঙ্গুর হয়ে পড়ে। তাই এ ধরনের উপাদান যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *