স্বাস্থ্যকর মিষ্টির খোঁজ

মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন না এমন মানুষ কমই পাওয়া যাবে। বাঙালির শেষ পাতে মিষ্টি না হলে চলেই না। অতিথি আপ্যায়ন, উৎসব, আনন্দ উদযাপন সবকিছুতেই মিষ্টির প্রাধান্য থাকে। কিন্তু মিষ্টি খেতে যতই ভালো লাগুক না কেন, অসুখের ভয় মনে থেকেই যায়। কারণ মিষ্টি বা সুগার অনেক অসুখের সঙ্গে সম্পর্কিত। মিষ্টি খেলে ডায়াবেটিসের ভয় থাকে, এমনকী বাড়তে পারে ওজনও। তাই বলে মিষ্টি খাওয়া একেবারে বাদ দেবেন না। রাতে মিষ্টি খাওয়া এড়িয়ে চলুন। চেষ্টা করুন দিনে মিষ্টি খেতে। এর কারণ হলো, রাতে মিষ্টি খেলে ওজন বাড়ার ভয় বেশি থাকে। সেই সঙ্গে এমন মিষ্টি খেতে হবে যা শরীরের জন্য উপকার বয়ে আনবে।

পাতে রাখুন মিষ্টি ফল

মিষ্টি পছন্দ হলে পাতের রাখুন মিষ্টি ফল। সব মৌসুমেই কিছু না কিছু মিষ্টি ফল পাওয়া যায়। সেসব খান নিয়মিত। চিকিৎসকের নিষেধ না থাকলে দিনের যেকোনো সময়েই মিষ্টি ফল খেতে পারেন। আঙুর, আপেল, কলা, আম, সফেদা, খেজুর, স্ট্রবেরি ইত্যাদি ফল খেতে পারেন। আবার এগুলো একসঙ্গে মিশিয়ে সালাদ তৈরি করে খেতে পারেন। মাঝে মাঝে চাইলে ফলের সালাদের সঙ্গে এক স্কুপ আইসক্রিম মিশিয়েও খেতে পারেন। এতে মিষ্টির স্বাদ আরও বেড়ে যাবে। বাড়িতে তৈরি জেলি বা জ্যাম মিশিয়েও খেতে পারেন। তাহলে তা আরও বেশি স্বাস্থ্যকর হবে।

চকোলেট ভালোবাসেন?

চকোলেট খেতে ভালোবাসলে বেছে নিন ডার্ক চকোলেট। কারণ এতে আছে ফ্ল্যাভিনয়েড নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা আপনাকে ভেতর থেকে শক্তি যোগাবে। পাশাপাশি দূর করবে হৃদরোগের ভয়ও। এই চকোলেট আমাদের রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে। তবে বাজারে যে সাধারণ চকোলেট পাওয়া যায়, তাতে এই গুণ মিলবে না। মিষ্টি চকোলেটে বাড়তি চিনি ও দুধ মেশানোর কারণে এর অনেক গুণ নষ্ট হয়ে যায়। তাই খেতে হবে ডার্ক চকোলেট। ডার্ক চকোলেট খেতে প্রথম দিকে একটু সমস্যা হতে পারে, তাই এর সঙ্গে বেরি জাতীয় ফল মিশিয়ে খেতে পারেন।

ছানা ও মধু

বাইরে থেকে কিনে আনা নয়, ঘরে তৈরি ছানা খেতে পারেন। দুধ জ্বাল করে ছানা কেটে নিন। ছানা চটকে নিয়ে তাতে মধু মিশিয়েও খেতে পারেন। মধু, ছানা, কিশমিশ ও বাদাম একসঙ্গে মিশিয়ে ভাপে দিয়ে তৈরি করতে পারেন ভাপা সন্দেশ। এটিও খেতে বেশ সুস্বাদু, সেইসঙ্গে স্বাস্থ্যকরও।

বাদাম ও খেজুর

বাদাম ও খেজুর প্রায় সব বাড়িতেই থাকে। এই দুই খাবার মিলিয়ে হতে পারে স্বাস্থ্যকর মিষ্টি। বাদাম ও খেজুর একসঙ্গে পিষে নিন। এরপর একটি ট্রেতে ঠেসে ঠেসে বিছিয়ে নিন। ভালোভাবে ঢেকে ফ্রিজে রাখুন কিছুক্ষণ। এরপর বের করে টুকরো করে নিন। দারুণ স্বাদের এই মিষ্টি আপনার স্বাস্থ্যের জন্যও বেশ উপকারী হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *