বড় লিডের পথে থেকে দিনশেষ বাংলাদেশের

শুক্রবার পাঁচ দিনের ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষ হয়েছে। সেখানে প্রথম ইনিংসে ১৭১ রানের লিডের সঙ্গে ৩ উইকেট হারিয়ে আরও ৪৭ রান যোগ করেছে বাংলাদেশ দল। ৭ উইকেট হাতে রেখে ২১৮ রানের লিড টাইগারদের। তৃতীয় দিনের উইকেটের চরিত্র যেমন দেখা গেছে, তাতে ম্যাচের চতুর্থ দিন আরও বেশি বিপাকে পড়তে হবে ব্যাটসম্যানদের। সে হিসেবে তৃতীয় দিনের খেলা শেষে চালকের আসনে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

ঘরের মাঠে বরাবরই স্পিন নির্ভর দল বাংলাদেশ। চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে তো স্কোয়াডে পাঁচ পেসার থাকলেও একাদশে রাখা হয়েছে একটি মাত্র পেসার। ৪ জন স্পিনার নিয়ে বোলিং বিভাগের আক্রমণ সাজিয়েছে স্বাগতিক টিম ম্যানেজমেন্ট। তাতে প্রথম ইনিংসে ফলও পেয়েছে টাইগাররা। সাকিব আল হাসান ইনজুরির কারণে না থাকলেও তার অভাব বুঝতে দেননি মেহেদী হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম।

ম্যাচে আগের দুই দিনের তুলনায় তৃতীয় দিন বাড়তি সুবিধা পেয়েছেন স্পিনাররা। টার্নের সঙ্গে কখনো এক্সটা বাউন্স, আবার কখনো নিচু হয়ে আসা বলে ভুগতে হয়েছে ব্যাটসম্যানদের। উইন্ডিজের শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের তো উইকেটের ধরণটাও পড়তে দেননি মিরাজ-তাইজুল। মায়ার্স, কর্নয়েলদের সঙ্গে ওয়ারিক্যানরাও ধরতে পারেননি বলের লাইন। সরাসরি বোল্ড হয়ে ফিরেছেন ড্রেসিংরুমে।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ স্কোর বোর্ডে তুলেছিল ৪৩০ রান। তবে স্বাগতিক স্পিনারদের বিপক্ষে সুবিধা করতে পারেননি সফরকারী দলের ব্যাটসম্যানরা। ২৫৯ রানে ক্যারিবীয়দের অলআউট করে ১৭১ রানের বড় লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে অধিনায়ক মুমিনুল হকের দল।

তবে ব্যাট করতে নেমে ঘরের মাঠ জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যর্থ তামিম ইকবাল। আগের ইনিংসে ৯ রান করলেও এবার রানের খাতা খুলতে পারেননি তিনি। উইন্ডিজ দলের সাফল্য আসে রাকহিম কর্নওয়েলের হাত ধরে। তামিমকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন আলোচিত এই অফ স্পিনার।

চরিত্র বাদলানো এই উইকেটে স্পিনাররা যে কতটা ভয়ানক হয়ে উঠতে চলেছেন, একই ওভারে নাজমুল হোসেন শান্ত ও তামিমকে শূন্য রানে সাজঘরে ফিরিয়ে সেটি জানান দিয়ে রাখলেন কর্নওয়েল।

মুমিনুলের সঙ্গে জুটি বেঁধে শুরুর ধাক্কা সামলানোর চেষ্টা করেন সাদমান ইসলাম। শেষ বিকেলে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের হালকা লাফিয়ে ওঠা বলে খেই হারালেন তিনিও। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ৪২ বলে ৫ রান করে আউট হন সাদমান। এই ওপেনার যখন সাজঘরে ফেরেন, তখন তৃতীয় দিনের খেলা শেষ হতে আরো ৩৭ বলে বাকি।

এরপর আর কোনো বিপদ হতে না দিয়ে নতুন ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে দিনের বাকিটা পথ পাড়ি দেন মুমিনুল, ৩ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ স্কোর বোর্ডে তোলে ৪৭ রান। ১৪ রানের অবিচ্ছেদ্য পার্টনারশিপে ২১৮ রানের লিড আরও বড়িয়ে নিতে ম্যাচের চতুর্থ দিন মুমিনুল ৫০ বলে ২১ ও ২৩ বলে ১০ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামবেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

বাংলাদেশ: প্রথম ইনিংস- ৪৩০/১০ (মিরাজ ১০৩, ৫৯, সাকিব ৬৮, সাদমান ৫৯; ওয়ারিক্যান ৪/১৩৩, কর্নওয়াল ২/১১৪)
দ্বিতীয় ইনিংস: ৪৭/৩, ২০ ওভার (মুমিনুল ৩১*, মুশফিক ১০*; কর্নওয়েল ২/২৮)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ: প্রথম ইনিংস- ২৫৯/১০, ৯৬.১ ওভার (ব্র্যাথওয়েট ৭৬, ব্ল্যাকউড ৬৮, ডি সিলভা ৪২; মিরাজ৪/৫৮, মুস্তাফিজ ২/৪৬)