গেব্রু ইস্যুতে গুগলের দুই কর্মকর্তার পদত্যাগ

সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক গবেষক তিমনিত গেব্রুকে পদত্যাগে বাধ্য করার প্রতিবাদে গুগলের দুজন কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন। গুগলের ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক ডেভিড বেকার ও সফটওয়্যার প্রকৌশলী ভিনেশ ক্যানান বুধবার পদত্যাগের এই ঘোষণা দেন।

ডেভিড বেকার তার চিঠিতে উল্লেখ করেন, তিমনিত গেব্রুকে পদত্যাগে বাধ্য হতে দেখে তার গুগলে কাজ করার ইচ্ছা শেষ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, ‘আমরা কখনো বাকস্বাধীনতার পক্ষে কথা বলতে পারবো না। কণ্ঠরোধের সংস্কৃতি সবসময় চলমান থাকবে।’

ভিনেশ ক্যানান বুধবার টুইটারে বলেন, মঙ্গলবার তিনি গুগল থেকে পদত্যাগ করেছেন কারণ সার্চ ইঞ্জিন কোম্পানিটি তিমনিত গেব্রু ও এপ্রিল ক্রিস্টিনা কার্লের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছে।

এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি গুগল। তবে গুগল থেকে তিমনিত গেব্রুকে সরিয়ে দেয়া ও এপ্রিল ক্রিস্টিনা কার্লের বিরুদ্ধে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কর্মকর্তাদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে চাইছে গুগল।

গুগলের দুজন কর্মকর্তার পদত্যাগের আগে থেকে অন্য কর্মকর্তারা তাদের একাডেমিক স্বাধীনতা ও গুগলের ব্যবস্থাপনা পরিবর্তনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছিলো। গত মাসে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তার দাবিতে ৮ শতাধিক কর্মকর্তা একত্রিত হয়ে সমাবেশ করে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে গুগলের এক লক্ষ ৩৫ হাজার কর্মকর্তার মধ্যে ২৬ শতাধিক কর্মকর্তা গেব্রুকে সমর্থন করে এক চিঠিতে স্বাক্ষর করে।

ডেভিড বেকারের চিঠিটি ইন্টারনাল অ্যাফিনিটি গ্রুপ একজন কালো তালিকাভুক্ত কর্মকর্তা হিসেবে গ্রহণ করেছে। বেকার বলেন, তিনি তার অবস্থান থেকে প্রতিবাদ করেছেন। ভিনেশ ক্যানান এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩ ডিসেম্বর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক গবেষক তিমনিত গেব্রুকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। এসময় গেব্রু বলেন, গুগল কর্তৃক তিনি প্রান্তিকীকরণের শিকার হয়েছেন। ডিসেম্বরে প্রকাশিত রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, গুগলের কর্মকর্তারা প্রযুক্তি কোম্পানিটির সুনাম নষ্ট করার জন্য আন্দোলন করছে বলে জানায় সার্চ ইঞ্জিন কোম্পানিটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *