মুখের যত্নে সবকিছু নয়

ত্বকের যত্নে ঘরোয়া উপাদান সেরা একথা সবারই জানা। নামী-দামী অনেক ব্র্যান্ডের পন্যের চেয়েও ঘরে থাকা সাধারণ কিছু উপাদান হতে পারে বেশি কার্যকরী। ঘরোয়া উপাদানে রূপচর্চা করলে খরচ তেমন হয়ই না বলতে গেলে। পাশাপাশি মেলে সুন্দর ত্বক। কিন্তু ঘরোয়া সব উপাদানই মুখের যত্নে ব্যবহার করা যাবে না। কারণ আমাদের মুখ শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় অনেক বেশি সংবেদনশীল। মুখে কী ব্যবহার করছেন সে বিষয়ে সতর্ক না হলে দেখা দিতে পারে অনেকরকম সমস্যা। প্রাকৃতিক সব উপাদান উপকারী হলেও মুখের জন্য সবগুলো উপকারী নয়। বরং কিছু উপাদান রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করলে ত্বকে প্রদাহ দেখা দিতে পারে, মুখের ত্বক পুড়ে যেতে পারে বা কালো দাগ পড়তে পারে। অনেক সময় আমরা উপকারী ভেবে মুখে নানা ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করি কিন্তু দিনশেষে মেলে অপকার। তাই যেসব উপাদান মুখের জন্য ক্ষতিকর সেগুলো সম্পর্কে জেনে রাখা জরুরি।

মুখে গরম পানির ব্যবহার নয়

শীতে গোসলের জন্য গরম পানির ব্যবহার করেন অনেকে। কিন্তু আপনি যদি গরম পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করেন তাহলে ত্বকের আর্দ্রতা নষ্ট হবে দ্রুত। ত্বক হয়ে যাবে রুক্ষ ও মলিন। ত্বকের যত্নে স্টিম ফেসিয়াল উপকারী হলেও সরাসরি গরম পানি মুখে ব্যবহার করা যাবে না। মুখ ধোয়ার জন্য ঠান্ডা পানি ব্যবহার করাই উত্তম। একদম ঠান্ডা পানি ব্যবহারে সমস্যা হলে সামান্য গরম পানি মিশিয়ে উষ্ণ গরম করে নিন। এতে ত্বকের পিএইচ ব্যালান্স ও কোমলতা বজায় থাকবে।

লেবুর রস উপকারী, তবে

লেবুর রস ত্বকের যত্নে উপকারী তা নিয়ে সন্দেহ নেই। রূপচর্চার নানা উপাদানের সঙ্গে ব্যবহার করা হয় লেবুর রস। ত্বকের নানা দাগ-ছোপ দূর করতে সাহায্য করে লেবুর রস। তবে শুধু লেবুর রস কখনো মুখে ব্যবহার করবেন না। লেবুর রসে থাকা অ্যাসিড আপনার মুখের ত্বক পুড়িয়ে দিতে পারে। ত্বকে সরাসরি লেবুর রস ব্যবহার করলে জ্বালাপোড়া, ফোসকা, কালো দাগ ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই বিভিন্ন ফেসপ্যাকের সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করুন তবে শুধু লেবুর রস কখনোই নয়।

টুথপেস্ট ব্যবহার করলে কী হয়?

দাঁত পরিষ্কারের জন্য কার্যকরী টুথপেস্ট ব্যবহার করা হয় আরও অনেক কাজেও। ব্রণ দ্রুত শুকানোর জন্য কিংবা কোথাও পুড়ে গেলে টুখপেস্ট ব্যবহার করে থাকেন অনেকেই। কিন্তু এই পদ্ধতিও ভুল সেকথা জানা আছে কি? ত্বকে টুথপেস্ট বেশি ব্যবহার করলে মেলানিন তৈরি হয় বেশি এবং ত্বকের রং দ্রুত পাল্টে কালো হয়ে যায়। ত্বকে টুথপেস্ট ব্যবহার করলে জ্বালাভাব ও দাগছোপ দেখা দিতে পারে। তাই ত্বকে টুথপেস্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

সানস্ক্রিনের মেয়াদ ফুরালে

সানস্ক্রিন ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে। এটি অতি বেগুনি আলোকরশ্মি থেকে ত্বককে বাঁচায়। তবে বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা মেয়াদোত্তীর্ণ সানস্ক্রিন ভুলেও ব্যবহার করা যাবে না। এই সানস্ক্রিন রোদের হাত থেকে বাঁচাতে পারবে না বরং ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। তাই রোদের ক্ষতি থেকে বাঁচতে নতুন সানস্ক্রিন কিনে ব্যবহার করুন।

ওয়্যাক্সিং করা যাবে না

হাত-পায়ের লোম তুলতে অনেকে ওয়াক্সিং করে থাকেন। তবে আমাদের হাত-পায়ের তুলনায় মুখ অনেক বেশি স্পর্শকাতর হয়ে থাকে। হাত-পায়ের যত্নে ওয়াক্সিং করলেও মুখের লোম তুলতা তা ব্যবহার করা যাবে না। কারণ আপনি যদি মুখে ওয়াক্সিং করে থাকেন তবে জ্বালাভাব ও লালচেভাব দেখা দিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *