যে কারণে ভরা পেটে গোসল করবেন না

গোসল আগে না-কি খাবার? সাধারণত গোসল সেরেই খেতে বসার অভ্যাস থাকে সবার। তবে কোনো কোনো সময়ে খেয়ে উঠে ভরা পেটে যে গোসল করা হয় না, তা কিন্তু নয়। বরং ছুটির দিনগুলোতে এটি বেশি হয়ে থাকে। অলসতায় গোসল করতে দেরি হয়ে যায়। আগে ভরপেট খেয়ে নিয়ে তারপর গোসল করতে যান অনেকে। কিন্তু এই সাধারণ অভ্যাসই হতে পারে নানা ক্ষতির কারণ। ভাবছেন, কীভাবে ক্ষতি হতে পারে? চলুন জেনে নেয়া যাক-

আমরা যখন খাবার খাই তার পরপরই সেই খাবার হজমের জন্য প্রচুর রক্ত পেটের দিকে ধেয়ে যায়। কিন্তু খেয়ে উঠে গোসলে চলে গেলে খুব স্বাভাবিকভাবেই সেই প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়। ভরাপেটে গোসল করলে পেটের দিকে ধেয়ে যাওয়া রক্তের গতিপথ বদলে গিয়ে পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। ফলে হজম প্রক্রিয়া ঠিকভাবে সম্পন্ন হয় না। যে কারণে দেখা দেয় বদ হজম ও গ্যাস্ট্রিকের মতো সমস্যা। তাই এসব সমস্যা থেকে বাঁচতে ভরা পেটে গোসলের অভ্যাস এড়িয়ে চলুন।

বিশেষজ্ঞরা বরাবরই ভরাপেটে গোসলের বিপক্ষে। খাবার খাওয়ার পরে হজমে সহায়ক পাচক রসের ক্ষরণ বেড়ে যায়। তাই এসময় আপনি যদি গোসল করেন তবে হজম প্রক্রিয়া ধীর হয়ে যায়। হজম প্রক্রিয়ার গতি ঠিক রাখতে তাই আপনাকে খাবার পরপরই গোসল করা থেকে বিরত থাকতে হবে। সবচেয়ে ভালো হয় গোসল সেরে খেতে বসলে। এতে আপনি খাবার ভালোভাবে উপভোগ করতে পারবেন।

খাবার খেয়ে উঠেই গোসলে যেতে নিষেধ করার আরেকটি কারণ হলো তাপমাত্রা। গোসল করার পরে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা অনেকটাই কমে যায় একথা সবারই জানা। কিন্তু শরীরের তাপমাত্রার সঙ্গে হজমের সম্পর্ক আসলে কী? আমাদের হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখতে শরীরের প্রয়োজন হয় একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রার। তাপমাত্রা ঠিক থাকলে হজম প্রক্রিয়া সহজ হয়। কিন্তু ভরা পেটে গোসল করলে শরীরের তাপমাত্রা কমে যায়। আর এ কারণেই বিশেষজ্ঞরা খাওয়ার পরে গোসল করতে নিষেধ করেন।

যদি এমন হয় যে আপনি খাওয়ার আগে গোসল করার সময় বের করতে পারলেন না, তাহলে চেষ্টা করুন খাবার খাওয়ার অন্তত দুই ঘণ্টা পরে গোসল করার। তাহলে আর কোনো সমস্যার ভয় থাকবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *