ভালোবাসাকে গভীর করে যেসব কাজ

ভালোবাসার সম্পর্কে যত্ন ও পরিচর্যা না থাকলে তা ধীরে ধীরে ম্লান হয়ে পড়ে। ভালোবাসার মানুষটি, যে সুখে-দুখে সব সময় পাশে থাকে, আপনিও তার পাশে থাকার চেষ্টা করুন। সম্পর্কটি অটুট রাখতে দু’জনেরই সমান প্রচেষ্টা থাকা জরুরি। সে তো আছেই- এই ধারণা থেকে বের হয়ে আসুন। যত্ন না নিলে কখনো ভাঙার নয় এমন সম্পর্কও ভেঙে যেতে পারে। তাই সম্পর্কের প্রতি যত্নশীল হোন। জেনে নিন এমনকিছু কাজ সম্পর্কে যেগুলো ভালোবাসাকে আরও গভীর করে-

একটু-আধটু তর্ক চলুক

সম্পর্ক সুন্দর রাখতে চান তাই মোটেই তর্ক করেন না? এমনটা মনে করা স্বাভাবিক যে, কোনো বিষয়ে তর্ক হওয়া মানেই দু’জনের সুন্দর সম্পর্ক নষ্ট হওয়া। বিষয়টি কিন্তু সেরকম নয়। এর কারণ হলো, দু’জন মানুষ সব বিষয়ে কখনোই একমত হতে পারবেন না। তাই কোনো বিষয়ে তর্ক হওয়াটা মন্দ নয়। তাতে পরস্পরের চাওয়া-পাওয়া সম্পর্কে জানতে পারা যায়। পাশাপাশি সম্পর্ককে সুন্দর রাখার সুযোগ পাওয়া যায়।

মিটিয়ে ফেলুন ঝগড়া-ঝাটি

ঝগড়া তো হবেই, তাই বলে তা দীর্ঘদিন বয়ে বেড়াবেন না। কারণ আপনি যদি গোপনে কোনো দুঃখ কিংবা রাগ পুষে রাখেন, তা একসময় প্রকাশ পাবেই। আর পুরোনো দুঃখ লালন করে চললে আপনি মানসিকভাবে শান্তিও পাবেন না। ফলে মনের পাশাপাশি প্রভাব পড়বে শরীরেও। তাই ঝগড়া হলেও তা দ্রুত মিটিয়ে ফেলুন। সমস্যার সমাধান শুরুতেই করে ফেলা ভালো। এতে সম্পর্কে শান্তি বজায় থাকবে।

ক্ষমা চাওয়া খারাপ নয়

অনেকের ধারণা হলো, যে আগে ক্ষমা চায় সে বুঝি ছোট হয়ে যায়! কিন্তু একটি সম্পর্ক সুন্দর রাখার জন্য দু’জনেরই ক্ষমা চাওয়ার অভ্যাস থাকতে হবে। অনেক সময় আমরা রেগে গিয়ে অনেকরকম কথা বলে ফেলি। যেসব কথার সবটা সঠিকও নয়। তাই আপনার কথা কিংবা কাজে অপরজন কষ্ট পেলে অবশ্যই ক্ষমা চেয়ে নেবেন। আর ক্ষমা চাওয়ার অভ্যাস থাকলে তা আপনাকে উদার হতে সাহায্য করবে।

জানিয়ে দিন ভালোবাসার কথা

সে আপনাকে কতটা ভালোবাসে সেকথা জানতে ইচ্ছা করে নিশ্চয়ই! আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন সেকথাও তাকে জানিয়ে দিন। নিজেকে তার কাছে লুকিয়ে রাখবেন না। তার চাওয়ার সঙ্গে মিলিয়ে নিজেকে প্রকাশ করুন। তার প্রতি আপনার ভালোবাসা, আপনার অনুভূতির কথা নির্দ্বিধায় বলে ফেলুন। চোখের ভাষা, মুখের ভাষা, গান, কবিতা, চিঠি- যেভাবে সম্ভব তাকে বলুন- ‘ভালোবাসি’।

দু’জন মিলে বেড়িয়ে আসুন

কাছে কিংবা দূরে- সুযোগ পেলেই বেড়িয়ে আসার অভ্যাস করুন। কারণ একইরকম জীবনযাপন করতে থাকলে একঘেয়েমি চলে আসবে। সেই একঘেয়েমির প্রভাব পড়বে দু’জনের সম্পর্কেও। তাই যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী বেড়িয়ে আসুন। নতুন পরিবেশ, নতুন অভিজ্ঞতা আপনাদের সম্পর্ককে সমৃদ্ধ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *