লন্ডন সম্পর্কে সেরা ৭ মিথ

বিশ্বে পর্যটকরা সবচেয়ে বেশি ভ্রমণ করে থাকেন লন্ডন শহরে। ২০১৬ সালেই শহরটিতে ১৯ মিলিয়নের বেশি মানুষ ভ্রমণ করেছে। টেমস নদীর তীরে অবিস্থিত শহরটি যুক্তরাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে বড় শহর। তবে শুধু যুক্তরাজ্যের নয়, বিশ্বের অন্য শহরগুলোর তুলনায় বড় শহর এটি। এই শহর সম্পর্কে যে ৭টি মিথ মানুষের মধ্যে প্রচলিত রয়েছে, চলুন সেগুলো জেনে নেয়া যাক-

১. চা-কফি

যারা প্রায়ই যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে যান, তাদের মধ্যে লন্ডন সম্পর্কে একটি মিথ রয়েছে আর সেটি হলো লন্ডনে ভালো কফি পাওয়া অসম্ভব। কিন্তু এ কথা এখন আর ঠিক নয়। লন্ডনে কফির ভালো ভালো দোকান রয়েছে। লন্ডনে রাস্তা ঘেঁষে ফুটপাতের দোকানেও কফি পাওয়া যায়।

২. খারাপ খাবার

লন্ডন সম্পর্কে আরও একটি মিথ রয়েছে যেটি হলো লন্ডনের খাবারের দোকানগুলোর খাবারে বৈচিত্র্য নেই। এ কথাও সত্য নয়। কারণ লন্ডনে রয়েছে হাজারো রেস্তোরাঁ। রেস্তোরাঁগুলোতে নানা পদের খাবার পাওয়া যায়।

৩. অমিশুক মানুষ

লন্ডনের মানুষজন অমিশুক এমন কথা লন্ডনের বাইরে অনেক বেশি শোনা যায়। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে লন্ডনের মানুষ অনেক বেশি মিশতে পারেন যা সাধারণভাবে কল্পনাও করা যায় না।

৪. নোংরা শহর

লন্ডন সম্পর্কে আরও একটি কথা প্রায়ই শোনা যায় সেটি হলো লন্ডন অনেক নোংরা শহর। কথাটি হাস্যকর শোনায়। কারণ লন্ডন প্রাচীন, ঐতিহ্যবাহী ও পরিচ্ছন্ন একটি দেশ হিসেবে পর্যটকদের কাছে পরিচিত।

৫. লন্ডন শহর ঘুমায় না

যারা বলেন লন্ডন শহর ঘুমায় না তারা কার্যত যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কথা বলেন। বেশ কয়েক বছর ধরে লন্ডন সম্পর্কে এমন কথা শোনা গেলেও লন্ডনের মতো কোলাহলে ভরা শহর আর নেই। শহরটির রাস্তায় গাড়ির শব্দ আর পথচারীদের ভীড় প্রমাণ করে লন্ডন শহরেও প্রাণচাঞ্চল্য রয়েছে।

৬. জীবনযাত্রার ব্যয় বেশি

লন্ডনে নাকি জীবনযাত্রার ব্যয় বেশি। এমন কথা হরহামেশা শোনা গেলেও তা ঠিক নয়। এখানে জীবনযাত্রার ব্যয় খুব বেশি নয়। অল্প ব্যয়ে চাহিদা মেটানো যায় এই শহরে। এছাড়া শহরটিতে খুব সাধারণ জীবনযাপন করা যায়।

৭. পাতাল রেল

লন্ডন সম্পর্কে অদ্ভুত একটি মিথ হলো এখানে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হলো পাতাল রেল। এটা ঠিক নয়। লন্ডনে যাতায়াতের আরও অনেক মাধ্যম রয়েছে। বাস, ট্রামসহ আরও অনেক যানবাহনে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *