ভ্রমণে সহায়তা করবে এমন ২৫ টিপস

নতুন কোনো জায়গায় ভ্রমণ করা মানেই নতুন নতুন অভিজ্ঞতা। ভ্রমণের সময়টি যেমন আনন্দের তেমনই ভ্রমণের আগে প্রস্তুতি নেয়াও বেশ প্রয়োজন।

আজ জানাবো এমন ২৫টি টিপস যা আপনাকে ভ্রমণে সহায়তা করবে।

১. অতিরিক্ত এটিএম কার্ড

অনেক সময় ভ্রমণে কোথাও পেমেন্ট করতে গিয়ে দেখা যায় এটিএম কার্ড কাজ করছে না। তখন বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এমন পরিস্থিতির শিকার না হতে অতিরিক্ত এটিএম কার্ড সঙ্গে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ।

২. স্থানীয় খাবার

যে স্থানে ভ্রমণ করবেন সেই স্থানের খাবার খেয়ে দেখা একটি রোমাঞ্চকর ভ্রমণের অভিজ্ঞতা। এতে স্থানীয় মানুষের খাদ্যাভ্যাস সম্পর্কে জানা যায়।

৩. পকেটমার থেকে সাবধান!

রাস্তাঘাটে অসাধু লোকের দৌরাত্ম্য রয়েছে। তাই যেকোনো সময় পকেট খালি হতে পারে আপনার। ভ্রমণে এমন বিব্রতকর অবস্থা ঠেকাতে পকেটমার থেকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

৪. রাতে অতিরিক্ত সতর্কতা

রাতে চলাফেরার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। এতে অনাকাঙ্ক্ষিত চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই এড়ানো যাবে।

৫. টিস্যু পেপার নেয়া

কোথাও যদি হাত ধোয়ার পানি না পাওয়া যায় তবে টিস্যু পেপার সঙ্গে থাকলে সুফল পাওয়া যায়। এতে বিড়ম্বনা এড়ানো যায়।

৬. পাসপোর্ট কপি করে রাখা

কোনো কারণে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়িয়ে চলার জন্য পাসপোর্টটি ফটোকপি করে রাখা সুবিবেচকের কর্তব্য।

৭. ভ্রমণবীমা

ভ্রমণে অনাকাঙ্ক্ষিত ক্ষয়ক্ষতির জন্য বীমা খুবই উপকারী। ভ্রমণের আগে ভ্রমণবীমা করা থাকলে ক্ষতিপূরণ পাওয়া যাবে।

৮. পরিবার ও বন্ধুদের জানানো

ভ্রমণে যাওয়ার আগে পরিবার ও বন্ধুদেরকে জানানো উচিৎ। কারণ কোনো বিপদাপদে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ হলে তারাই সবার আগে সাহায্য করবে।

৯. জনপ্রিয় জায়গাগুলোতে যাওয়া

ভ্রমণে জনপ্রিয় জায়গাগুলোকে গুরুত্ব দেয়া সমীচীন। সাধারণত জনপ্রিয় জায়গাগুলোতে নিরাপত্তার ঝুঁকি কম থাকে।

১০. হাঁটা

হেঁটে হেঁটে ভ্রমণ করলে অনেক সময় নিয়ে সেই এলাকার মানুষের খাদ্যাভ্যাস, সংস্কৃতি এবং চলাফেরার ধরন পর্যবেক্ষণ করা যায়।

১১. ট্যুরিস্ট স্পটে না খাওয়া

ট্যুরিস্ট স্পটের আশেপাশের দোকান থেকে কোনো কিছু না খাওয়াই ভালো। কারণ এসব দোকানের পরিবেশ সাধারণত অস্বাস্থ্যকর হয়ে থাকে।

১২. আগেভাগে বিমানে ফ্লাইট বুক করে রাখা

দেশের বাইরে ভ্রমণ করতে চাইলে বিমানে ভ্রমণের কয়েকদিন আগেই ফ্লাইট বুক করে রাখা খুব জরুরি। এতে ভ্রমণের জন্য ভালোমতো প্রস্তুতি নেয়া যায়।

১৩. কয়েকটি ছবি তোলা

কয়েকবার ক্লিকের পর একটি ভালো ছবি তৈরি হয়ে থাকে। তাই যখন নিজের ছবি বা সেলফি তোলা হয় তখন কয়েকটি ছবি একসঙ্গে তোলা ভালো।

১৪. অফলাইন ম্যাপ

অফলাইন ম্যাপ হচ্ছে গুগল ম্যাপের একটি সার্ভিস। যা ডাউনলোড করে রাখলে আপনি ইন্টারনেট ছাড়া ম্যাপ সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা পেতে পারেন। এটা খুবই উপকারী। কাজেই অফলাইন ম্যাপ ডাউনলোড করে রাখুন।

১৫. উবার, পাঠাও ব্যবহার

ঢাকা শহরে কোথাও ভ্রমণের ক্ষেত্রে মোবাইল অ্যাপ সার্ভিস উবার, পাঠাওয়ে চলাফেরা ভ্রমণকে গতিময় করে তুলতে পারে।

১৬. আইমাস্ক, পোর্টেবল বালিশ সঙ্গে রাখা

ধূলোবালিময় এলাকায় ভ্রমণে গেলে আইমাস্ক ব্যবহার করা ভালো। এতে ধূলোবালি চোখে আসবে না। রাতে কোথাও থাকার জন্য গেলে এবং অস্থায়ী জায়গায় থাকতে হলে বহন করা বালিশ সঙ্গে রাখতে হবে।

১৭. স্থানীয় আইন ও স্থানীয় সংস্কৃতিকে শ্রদ্ধা

ভ্রমণে স্থানীয় আইনের বিরুদ্ধে কোনো কাজ করা অনভিপ্রেত। তাই স্থানীয় ও জাতীয় আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা জরুরি। এছাড়া স্থানীয় মানুষের সংস্কৃতিকে সম্মান প্রতিটি পর্যটকের জাতীয় কর্তব্য।

১৮. পোর্টেবল মোবাইল চার্জার রাখা

ভ্রমণে মোবাইলের চার্জ শেষ হয়ে এলে পোর্টেবল চার্জার থাকলে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়িয়ে চলা যাবে। অন্তত যোগাযোগ রক্ষা করা সম্ভব হবে।

১৯. সেলফি তোলা

বিশ্বায়নের যুগে ভ্রমণে গিয়ে সেলফি তোলে না এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। সেলফি তুললে নিজেকে চেনা যায়।

২০. ফ্ল্যাশ ব্যবহার না করা

ক্যামেরায় ফ্ল্যাশ ব্যবহার করলে অন্যদের অসুবিধা হতে পারে। তাই ছবি তোলার সময় ফ্ল্যাশ ব্যবহার না করাই সমীচীন।

২২. গভীর রাতে ট্রেন ও বাসে যাতায়াত

অর্থ ও সময়ের অপব্যয় রোধে গভীর রাতে ট্রেন ও বাসে যাতায়াত ভ্রমণের সুখকর অভিজ্ঞতা দেবে। এতে দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছা যাবে।

২৩. প্রাথমিক চিকিৎসার সরঞ্জাম রাখা

দুর্ঘটনা ঘটলে তখন যাতে হাতের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসার সরঞ্জাম পাওয়া যায় তাই এসব সরঞ্জাম সঙ্গে রাখা অতিশয় জরুরি।

২৪. স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বলা

স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বললে তাদের ভাষা সম্পর্কে জানা যায়। আবার পথ ভুলে গেলে তারা পথ দেখিয়ে দেয়। সুতরাং স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বলতে পারেন।

২৫. ভিসা বা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখে নেয়া

ভিসা বা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঠিক আছে কিনা তা বারবার দেখে নেয়া জরুরি। এতে অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যা থেকে বাঁচানো যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *