ঘুরে আসুন মালয়েশিয়া : সেরা ১০ জায়গা

বাংলাদেশের মানুষের কাছে মালয়েশিয়া ভ্রমণ খুব আকর্ষণীয়। দেশটির চাকচিক্যময় দর্শনীয় স্থান এবং মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক দৃশ্য ভ্রমণপিপাসুদের আগ্রহ আরও বাড়িয়ে দেয়। এদিক থেকে মালয়েশিয়ার সব শহরই দর্শনীয় জায়গা। এর মধ্যে রয়েছে কুয়ালালামপুর, পেনাং, পারহেনশিয়ান দ্বীপ, মালয়েশিয়ান বর্নেও, মালাক্কা, তামান নেগারার নাম।

প্রাচ্য থেকে পাশ্চাত্য প্রত্যেকে মালয়েশিয়া ভ্রমণে আসেন প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগের জন্য। পাহাড় ও সমুদ্রে যে দেশ হয়েছে রঙিন, সে দেশের জনপ্রিয় ১০টি দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে চলুন জেনে নেয়া যাক-

১. কুয়ালালামপুর

মালয়েশিয়া ভ্রমণ করেছেন আর কুয়ালালামপুরে যাননি এমন লোক খুব কম পাওয়া যাবে। কুয়ালালামপুর মালয়েশিয়ার রাজধানী। এখানে অবস্থিত টুইনটাওয়ার বিশ্বে অভিনব সুউচ্চ দালান হিসেবে পরিচিত। প্রধানত এই দালানের কারণে মালয়েশিয়া বিশ্বে পরিচিত। শততলার এই দালান মালয়েশিয়ায় পেট্রোনাস টাওয়ার নামে পরিচিত।

২. পেনাং

মালয়েশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত বড় একটি দ্বীপ রয়েছে, সেই দ্বীপের নাম পেনাং। মালয়েশিয়ানরা এই দ্বীপ নিয়ে গর্ব করে থাকেন। এটি মালয়েশিয়ার পেনিনসুলা মালয়েশিয়া অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত। এই প্রদেশের রাজধানী জর্জ টাউন। দ্বীপাঞ্চলটি পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় এক নম্বরে রয়েছে।

৩. পারহেনশিয়ান দ্বীপ

পারহেনশিয়ান দ্বীপ বস্তুত একটি সমুদ্রসৈকত। এই দ্বীপ তেরেঙ্গানা অঙ্গরাজ্যের বেসুত জেলায় অবস্থিত। এখানে অনেক পর্যটক বেড়াতে আসেন। ছুটির দিনগুলোতে এই দ্বীপে দর্শনার্থীদের সাড়া ভালোভাবে টের পাওয়া যায়। সমুদ্রমন্থন যাদের নেশার মতো তাদের জন্য এটি উপযুক্ত জায়গা।

৪. মালয়েশিয়ান বর্নেও

মালয়েশিয়ান বর্নেও মালয়েশিয়ার পার্বত্য অঞ্চল। এটি বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বড় দ্বীপ। এই দ্বীপে অনেক বন্যপ্রাণীর দেখা পাওয়া যায়। এসব বন্যপ্রাণী দেখার জন্য বহু পর্যটক এখানে ভীড় করেন। এর উত্তরে জাভা, পশ্চিমে সুলাওয়েসি ও পূর্বে সুমাত্রা অবস্থিত।

৫. মালাক্কা

মালাক্কা মালয়েশিয়ার ঐতিহ্যবাহী ও ঔপনিবেশিক সময়ের জায়গা। এটি মালাক্কা অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত। ছুটির দিনগুলোতে অনেকে এখানে ছুটে আসেন পরিবারের সঙ্গে সময় দেয়ার জন্য। অনেকে আসেন অবসাদ ভুলে নতুন করে জীবনের স্বাদ নেয়ার জন্য।

৬. তামান নেগারা

তামান নেগারা মালয়েশিয়ার জাতীয় পার্ক। এটি সবচেয়ে পুরনো জাতীয় পার্ক। এই পার্ক পেনিনসুলা মালয়েশিয়া অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত। এখানে রয়েছে বিনোদনের সব রকম ব্যবস্থা। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ এখানে ছুটে আসেন।

৭. ক্যামেরন হাইল্যান্ড

ক্যামেরন হাইল্যান্ডের মতো জায়গা এশিয়া মহাদেশে খুব কম রয়েছে। এটি একটি সমুদ্রসৈকত। এটি মালয়েশিয়ার পাহাং অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত। বহু সমুদ্রপ্রেমী এখানে ছুটে আসেন অবসরের সময় কাজে লাগানোর জন্য।

৮, তিওম্যান দ্বীপ

তিওম্যান দ্বীপ একটি সমুদ্রসৈকত। এটি পাহাং অঙ্গরাজ্যের রমপিন জেলায় অবস্থিত। সমুদ্রবিলাসীদের জন্য এটি একটি মুক্তাঞ্চল। দ্বীপটি দেখার জন্য অনেক পর্যটক ভীড় করেন।

৯. লঙ্কাউই

মালয়েশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত লঙ্কাউই দ্বীপ মালয়েশিয়ার অন্যতম দর্শনীয় জায়গা হিসেবে পরিচিত। এটি একটি পার্বত্য অঞ্চল। অনেকেই এই দ্বীপে জড়ো হন শুধু একটিবার দ্বীপটি দেখার জন্য। এই দ্বীপ মালাক্কা থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

১০. সেলাঙ্গর

সেলাঙ্গর মালয়েশিয়ার একটি পার্ক ও চিড়িয়াখানা উভয়ই। এটি দ্বীপও বটে। এটি পেনিনসুলা মালয়েশিয়ায় অবস্থিত। অসংখ্য ভ্রমণপিপাসু মানুষ এখানে আসেন ছবি তুলতে।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় আরও অনেক দর্শনীয় স্থান রয়েছে যা দেখার জন্য বহুলোক দূর-দূরান্ত থেকে এমনকি প্রাচ্য থেকেও ভ্রমণ করে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *