লাইফস্টাইল

উপকারী কিছু বদ অভ্যাস সম্পর্কে জেনে নিন

সব মানুষেরই ভালো এবং খারাপ দুই রকমের অভ্যাস থাকে। খারাপ অভ্যাসগুলোকে বদ অভ্যাস বলে অভিহিত করা হয়। আর কম-বেশি বদ অভ্যাস সবারই থাকে! আপাতদৃষ্টিতে অপকারী মনে হলেও কিছু অভ্যাস আছে যেগুলো আসলে উপকারই করে বেশি!

যখন-তখন আঙুল ফোটানো, খাওয়া শেষে সবার সামনেই শব্দ করে ঢেঁকুর তোলা, দুশ্চিন্তা হলে নখ কামড়ানো- এমন অনেক বদ অভ্যাস আমাদের সবারই কম-বেশি রয়েছে। চলুন জেনে নেই এ ধরনের অভ্যাস আমাদের কীভাবে উপকার করে-

ঢেঁকুর তুললে মিলবে উপকার

তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলা বলে একটি কথা আছে। পেটপুরো পছন্দের খাবার খেয়ে ঢেঁকুর না তুললে কি চলে! তবে এটি সবার সামনে না করাই ভালো। কারণ আপনার ছোটখাট অনেক নির্দোষ অভ্যাসও অনেকের জন্য বিরক্তি ডেকে আনতে পারে।

ঢেঁকুরকে অনেকের কাছে বিরক্তির কারণ মনে হলেও এটি আসলে আমাদের শরীরের জন্য বেশ উপকারী। এর মাধ্যমে পাকস্থলীতে জমে থাকা গ্যাস বেরিয়ে যায়। তাই খাওয়ার পরে স্বস্তি পেতে এটি দরকারী। তবে টানা ঢেঁকুর উঠতে থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

নখ খেলে কি সত্যি উপকার হয়?

ক্ষতিকর সব ব্যাকটেরিয়া এবং জীবাণুকে প্রতি সেকেন্ডে চিহ্নিত করে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলা আমাদের শরীরের অন্যতম কাজ। এই কাজ ঠিকভাবে না হলে নানারকম অসুখ দেখা দিতে পারে। শরীরের নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা বেশিরভাগ সময়েই ক্ষতিকর জীবাণুদের মেরে ফেলে।

নখ কামড়ানোর অভ্যাস থাকলে তার মাধ্যমে ব্যাকটেরিয়া শরীরে প্রবেশ করে। আর সঙ্গে সঙ্গে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা সেগুলো চিহ্নিত করে। এরপর সেগুলো ধ্বংস করার কাজে লেগে যায়। শুধু তাই নয়, একইরকম ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া শরীরে থাকলে সেগুলোকেও মেরে ফেলে। এর মাধ্যমে শরীর নতুন ব্যাকটেরিয়াকে চিহ্নিত করতে পারে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও জোরদার হয়।

বায়ুত্যাগও কিন্তু উপকারী

বায়ুত্যাগ নিয়ে সংকোচ, বিব্রতবোধ কাজ করে প্রায় সবার মাঝেই। সবার সামনে এমন পরিস্থিতি হলে লজ্জার শেষ থাকে না যেন। তবে বিশেষজ্ঞরা এটি চেপে না রাখার প্রতি মত দিচ্ছেন। তাদের মতে, এ ধরনের কোনো চাপ এলে তা আটকে না রেখে বের করে দেয়া উচিত।

মানুষ দিনে গড়ে তের-চৌদ্দবার গ্যাস ত্যাগ করে। শরীরে তৈরি হওয়া কার্বন ডাই অক্সাইও ও মিথাইন গ্যাস কোনো কারণে আটকে থাকলে পেটে ব্যথার সৃষ্টি হতে পারে। অনেক সময় পেট ফোলা বা পেট ফাঁপার সমস্যা দেখা দেয়। তাই বায়ুত্যাগের প্রয়োজন হলে চেপে রাখতে যাবেন না। তবে অবশ্যই তা অন্যের সামনে ত্যাগ করা বুদ্ধিমানের কাজ নয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button