যুক্তরাষ্ট্রের সাইবার হামলায় রাশিয়া জড়িত

ডিসেম্বরে একের পর এক সাইবার হামলার পেছনে রাশিয়ার জড়িত থাকার অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ইনটেলিজেন্ট এজেন্সি। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনকে দোষারোপ করে আসলেও ট্রাম্প প্রশাসন রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে থাকে।

ইনটেলিজেন্স এজেন্সি বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি মন্ত্রণালয়সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের ঘটনায় রাশিয়া জড়িত। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও ডিসেম্বরে বলেছিলেন যে একের পর এক সাইবার হামলার পেছনে রাশিয়া জড়িত।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটে বলেছেন, ‘একের পর এক সাইবার হামলার খবর সত্য নয়, এই বিষয়ে আমি ব্রিফিংয়ে বলেছি।’ ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বিবিসির খবরে জানা যায়, ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক সাইবার হামলার ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব ছিলো সাইবার ইউনিফাইড কো-অর্ডিনেশন গ্রুপের। তাদের যৌথ বিবৃতিতে রাশিয়ার বিরুদ্ধেই অভিযোগ করা হয়। বলা হয়, রাশিয়া ধারাবাহিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রে সাইবার হামলা করে আসছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক সাইবার হামলার ঘটনা গুরুতর অপরাধ। তবে মস্কো কর্তৃপক্ষ এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আগে থেকে বলে আসছেন যে হ্যাকিংয়ের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

গত ডিসেম্বরে যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে যুক্তরাজ্যের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটও হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *