টিকটকের বিরুদ্ধে কিশোরীর মামলা

বারো বছরের এক কিশোরী বেআইনিভাবে শিশুদের তথ্য প্রকাশের অভিযোগে মামলা দায়ের করায় খানিকটা বিপদেই পড়েছে চীনা মালিকানাধীন ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটক।

টিকটকের বিরুদ্ধে ওই কিশোরীর করা মামলায় সমর্থন জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের শিশু বিষয়ক কমিশনার অ্যানি লংফিল্ড। তিনি বলেছেন, যুক্তরাজ্য এবং ইইউয়ের তথ্য সংরক্ষণ আইন লঙ্ঘন করেছে টিকটক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কিশোরীর মামলা নিয়ে টিকটক কর্তৃপক্ষ বলেছে, টিকটকে ১৩ বছরের কম বয়সী কাউকে অ্যাকাউন্ট খোলার অনুমতি দেওয়া হয় না। এই নীতিমালা কঠোরভাবে মেনে চলে তারা।

ইংল্যান্ডের শিশু বিষয়ক কমিশনার অ্যানি লংফিল্ড লংফিল্ড বলেছেন, মামলাটির মাধ্যমে ইংল্যান্ডে ১৬ বছরের কম বয়সী শিশুদের টিকটক ব্যবহারের বিষয়টি আরও সুরক্ষিত হবে।

তিনি আরও বলেন, বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় ও গ্রাহকদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য টিকটক শিশুদের ছবি ও তথ্য ব্যবহার করে থাকে।

বিচারক জাস্টিস ওয়ারবি বলেন, ওই কিশোরীর পরিচয় প্রকাশ করা হলে সে অন্য অনেক টিকটক ব্যবহারকারী ও শিশুদের দ্বারা হয় হয়রানির শিকার হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে কিনা তা পর্যালোচনা করা হবে।

উল্লেখ্য, একই অভিযোগে টিকটকের বিরুদ্ধে করা মামলার বিচার কার্যক্রম শুরুর আগে গুগলের বিরুদ্ধে তথ্য সংরক্ষণ আইনে দায়ের করা মামলার সমাপ্তি দেখতে চান শিশু কমিশনার লংফিল্ড।

বেআইনিভাবে শিশুদের তথ্য প্রকাশের অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ট্রেড কমিশন ২০১৯ সালে টিকটককে ৫ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার অর্থদণ্ড দিয়েছিল।

ওই সময় টিকটক কর্তৃপক্ষ বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিল যে, ‘গোপনীয়তা ও নিরাপত্তার বিষয়টিতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয় টিকটক। আমাদের এ ব্যাপারে কঠোর নীতিমালা রয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *