ইউক্রেন ভ্রমণ : সেরা ১০ জায়গা

পূর্ব ইউরোপের অন্যতম বড় দেশ ইউক্রেন। মার্জিত রুচিবোধসম্পন্ন মানুষ ইউক্রেনে ভ্রমণ করে থাকেন। ইউক্রেনে রয়েছে সাধারণ গীর্জা, অর্থোডক্স গীর্জা, পুরনো ও সুরক্ষিত দুর্গ, উঁচু পাহাড় এবং কৃষ্ণসাগরের সৈকত। আজ আপনাদের জানাবো ইউক্রেনের সেরা ১০ জায়গা সম্পর্কে।

১. উমান

উমাংকা নদীর তীরে ওদেসা ও কিয়েভ নামে দুটি জনপ্রিয় শহর রয়েছে। এই দুই শহর দর্শনার্থীদের কাছে অনেক পছন্দের। ১৬১৬ সালে যখন পোল্যান্ডের শাসনাধীন ছিলো ইউক্রেন তখন উমান শহর গড়ে তোললা হয়। এই শহরের প্রধান আকর্ষণ সফিভিয়া পার্ক। এছাড়া শহরটিতে রয়েছে অভিজাত স্থাপত্যে নির্মিত ভবন, মিউজিয়াম, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের মনুমেন্টসহ আরও অনেক কিছু।

২. রাখিভ

রাখিভ শহর ইউরোপের ভৌগোলিক কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত। শহরটি ইউক্রেনের সবচেয়ে উঁচু অঞ্চলে অবস্থিত। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা এই শহরে প্রকৃতিপ্রেমীরা ভ্রমণ করে থাকেন। এই শহরে রয়েছে টিসা নদী। শহরটির পাহাড়ে অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় মানুষ ভ্রমণ করে থাকেন। প্রতি বছর সেপ্টেম্বর হুটসুল ব্রিঞ্জা ফেস্টিভ্যাল নামে একটি উৎসব হয়ে থাকে।

৩. চেরনিহিব

ইউক্রেনের অন্যতম পুরনো শহর চেরনিহিব। শহরটিতে ঠিক কবে থেকে বসতি গড়ে উঠেছে তা বলা যায় না। কিয়েভের পরে চেরনিহিব শহরকে ইউক্রেনের কেন্দ্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই শহরে অভিজাত ভবন ছাড়া রয়েছে অনেক সুশোভিত গীর্জা। সবচেয়ে বিখ্যাত গীর্জা ক্যাথরিনের ক্যাথেড্রাল। একাদশ শতকে নির্মিত ৫ গম্বুজবিশিষ্ট ট্রান্সফিগারেশন ক্যাথেড্রাল।

৪. বুকোভেল

বুকোভেল শহরে ইউক্রেনের মধ্যে সবচেয়ে বড় স্কি রিসোর্ট রয়েছে। শুধু তাই নয়, এখানে পূর্ব ইউরোপের সবচেয়ে বড় স্কি রিসোর্ট রয়েছে। বুকোভেল শহরে সব বয়সের মানুষ ভ্রমণ করে থাকেন। মূলত স্কি খেলার জন্যই পর্যটকরা ভ্রমণ করেন।

৫. চেরনিভটসি

চেরনিভটসি শগরে কারপাথিয়ান পাহাড় রয়েছে। শহরটি পশ্চিম ইউক্রেনে অবস্থিত। চেরনিভটসি শহরকে ছোট ভিয়েনা হিসেবে অভিহিত করা হয়। এই শহরে বহু প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন রয়েছে। বিশেষ করে নব্য প্রস্তর যুগের বেশ কিছু নিদর্শন রয়েছে। শহরটি কালো শহর হিসেবেও পরিচিত। মোঙ্গলদের আক্রমণের কারণে এই শহর ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

৬. ক্যামিয়ানেটস-পডিলস্কিয়ি দুর্গ

পশ্চিম ইউক্রেনের ক্যামিয়ানেটস-পডিলস্কিয়ি দুর্গ দর্শনার্থীদের কাছে বিখ্যাত। দুর্গটি পূর্ব ইউরোপের অন্যতম মনোমুগ্ধকর স্থান হিসেবে বিবেচিত। দুর্গের পাশে রয়েছে স্মটরিক নদী। দুর্গটিতে রয়েছে একটি সেতু।

৭. শেরনোবিল

শেরনোবিল শহর ইতিহাসসচেতন মানুষের কাছে অনেক পছন্দের। এই শহরে রয়েছে অনেক অভিজাত ভবন। অভিজাত ভবনের কারুকার্যময় স্থাপত্যে বিমোহিত হন মানুষ। পূর্ব ইউরোপের অন্যতম ইতিহাসসমৃদ্ধ শহর শেরনোবিল।

৮. ওদেসা

গ্রিস, সোভিয়েত ইউনিয়ন ও তুরস্কের অটোমান সুলতানদের দ্বারা এই শহর শাসিত হয়েছে। ইউক্রেনের দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত ওদেসা শহরে রয়েছে মনোমুগ্ধকর ও আভিজাত্যে পরিপূর্ণ মিউজিয়াম রয়েছে। রয়েছে ক্যাফে, সমুদ্রসৈকত ও নাইটক্লাব।

৯. এলভিভ

পশ্চিম ইউক্রেনের অন্যতম বড় শহর এলভিভ। শহরটিতে বহু ঐতিহাসিক স্থাপনা রয়েছে। ১২৪০ সালে যখন এই শহরে প্রথম বসতি গড়ে ওঠে, তখন নাম ছিলো লিও। পোল্যান্ড ও সোভিয়েত ইউনিয়নের শাসনাধীনে থাকার সময় শহরটি ইউক্রেনের রাজধানী ছিলো।

১০. কিয়েভ

কিয়েভ ইউক্রেনের রাজধানী। কিয়েভে রয়েছে সোভিয়েত স্থাপত্যে নির্মিত ভবন, আশ্রম, সোনার গম্বুজবিশিষ্ট গীর্জা এবং মনোরম পথ। পূর্ব ইউরোপের অন্যতম পুরনো শহর কিয়েভ শহরে ৪৮২ সালে প্রথম বসতি গড়ে ওঠে। ইউক্রেনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শহর কিয়েভ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *