সেজেই করুন মন ভালো

মহামারি আসার পর থেকে অনেককিছুই আগের মতো নেই। আমাদের জীবনযাপন আগের মতো হতে শুরু করেছে কেবল। অনেক অভ্যাসই আমরা বদলে ফেলেছি। নানা দুশ্চিন্তা মনে ভর করে মন খারাপ করে দিচ্ছে। এসবের মধ্যে নিজের মনের মতো করে সাজগোজ করছে না বেশিরভাগ মেয়েই। বরং শীতের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করেই রূপচর্চায় ইতি টানছে অনেকে। কিন্তু আয়নায় নিজের মলিন চেহারা দেখতে কারও ভালোলাগে না নিশ্চয়ই। তাই পরিস্থিতি সামলে নিয়ে সুন্দর ও পরিপাটি থাকার চেষ্টা করাই উত্তম। নিজেকে পরিপাটি দেখলে মন মুহূর্তেই ভালো হয়ে যাবে।

বাইরে বের হন বা হন, নিজের জন্য হলেও একটুখানি সাজতে পারেন। নিজেকে সুন্দরভাবে সাজাতে প্রয়োজন পড়ে মেকআপের। এতে নিজেকে সারাদিন পরিপাটি ও চনমনে লাগে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে সুন্দর করে সাজলে তা মন খারাপ অনেকটাই দূর করে দিতে পারে। তাই মন খারাপ হলে বা কোনোকিছু করতে ভালো না লাগলে আয়নার সামনে বসে যান আর মন ভরে সাজুন। যখন আয়নায় ঝলমলে নিজেকে দেখতে পাবেন তখন মন খারাপ দূরে পালাবে।

তবে শুধু মন খারাপের সময়ে না সেজে যখন আপনার মন চাইবে, তখনই সাজুন। আর এই সাজ মানে জবরজং কিছু নয় বা বিয়েবাড়ির মতোও নয়, নিজেকে স্নিগ্ধ করে তোলার মাধ্যম শুধু। ততটুকুই সাজুন, যতটুকু সাজলে নিজের কাছে দেখতে ভালোলাগে। জেনে নিন পরিপাটি করে নিজেকে কীভাবে সাজাবেন তার কিছু উপায়-

মুখ পরষ্কিার

ভালোভাবে মেকআপ করার প্রথম শর্ত হলো মুখ পরিষ্কার রাখা। প্রথমে ক্লিনজার কিংবা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর টোনার মাখতে হবে ভালো করে। আর তারপর দেবেন ময়েশ্চারাইজার।

ফাউন্ডেশন

ভারী ফাউন্ডেশন না মেখে বরং বিবি ক্রিমটাকেই ফাউন্ডেশন হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। ভালোভাবে মেখে নিলেই বেজ মেকআপ তৈরি। এরপর এর উপরে ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার হালকা করে বুলিয়ে নিন। লিপ বাম আঙুলে ঘষে গালে আলতো করে মেখে নিলেও কিন্তু চমৎকার লাগবে।

চোখের সাজ

চোখ না সাজালে মেকআপ পূর্ণ হয় না। তাই ভালো কোনো ব্র্যান্ডের আইলাইনার বেছে নিন। নয়তো দেখতে ভালোলাগবে না। চিকন করে টেনে নিন চোখের উপরের পাতায়। নিচের পাতায় কাজল পরে একটু স্ম্যাশ করে দিতে পারেন। এতে দেখতে আরও বেশি মায়াবতী লাগবে।

ঠোঁটের সাজ

লিপস্টিক বা লিপগ্লস পরার আগে ঠোঁটে একবার লিপবাম বুলিয়ে নিন। এরপর পছন্দের লিপস্টিক বা লিপগ্লস পরুন। এতে ঠোঁট দীর্ঘ সময় আর্দ্র থাকার পাশাপাশি গ্লসি লুক দেবে। তবে গ্লসি লুক না চাইলে ম্যাট কোনো লিপস্টিক বা লিপগ্লস ব্যবহার করতে পারেন।

এবং চুলের সাজ

এবার চুলের পালা। খুব সুন্দর করে সময় নিয়ে চুল আঁচড়ে নিন। পছন্দের কোনো স্টাইল থাকলে সেভাবে বেঁধে নিন চুল। সম্ভব হলে প্রিয় ফুল গুঁজে দিন চুলে। এতে দেখতে লাগবে আরও বেশি সুন্দর। এবার আয়নায় ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখুন নিজেকে। এবার মনটা ভালো হলো তো?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *