ঘুরে আসুন সুইডেন: সেরা ১০ জায়গা


প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সুইডেন বিশ্বের মানুষের কাছে অনেক পছন্দের একটি দেশ। এই দেশে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক স্থাপনা ও নান্দনিক স্থাপত্যে নির্মিত ভবন। আজ আপনাদের জানাবো সুইডেনের সেরা ১০ দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে।

১. কোস্টারহ্যাভেট ন্যাশনাল পার্ক

সুইডেনে অনেক উপকূল রয়েছে। কিন্তু কোস্টারহ্যাভেট ন্যাশনাল পার্ক সুইডেনের সবচেয়ে সেরা জায়গা। নরওয়ে সীমান্তে অবস্থিত কোস্টারহ্যাভেট ন্যাশনাল পার্কে সব বয়সের মানুষকে দেখা যায়। এটি সুইডেনের প্রথম মেরিন ন্যাশনাল পার্ক।

২. মাস্ট্রান্ড

মাস্ট্রান্ড শহরে বসতি গড়ে উঠেছে ১২০০ সালে। সেই সময় থেকে এই শহর দুটো কারণে বিখ্যাত- জাহাজ ও দুর্গ। পশ্চিম সুইডেনে অবস্থিত এই দ্বীপে সপ্তদশ শতকে নির্মিত কার্লস্টেন দুর্গ রয়েছে। স্থানীয়দের কাছে এই শহর খুব পছন্দের।

৩. মালমো

সুইডেনের তৃতীয় বড় শহর মালমো। এখানে রয়েছে বড় বড় ভবন ও সুরম্য দুর্গ। এই শহরের প্রধান আকর্ষণ টার্নিং টর্সো। এই শহরে রয়েছে অসংখ্য অভিজাত ভবন। মানুষ এই শহরকে এসব ভবনের কারণে চিনে থাকেন।

৪. ইয়াস্টাড

দক্ষিণ সুইডেনে অবস্থিত ইয়াস্টাড শহরে ভার্জিন ম্যারি গীর্জা রয়েছে। এই গীর্জা ইউরোপের মধ্যযুগে নির্মিত। শহরটিতে গীর্জা ছাড়াও রয়েছে নান্দনিক স্থাপত্যে তৈরি আশ্রম। বিশ্বের সব জায়গার সব বয়সের মানুষ এই শহরে ভ্রমণ করে থাকেন।

৫. স্টকহোলম আর্কিপেলাগো

স্টকহোলম আর্কিপেলাগো শহর সমুদ্রের জন্য বিখ্যাত। এই শহরে সমুদ্রপ্রেমী মানুষকে বেশি ভ্রমণ করতে দেখা যায়। স্টকহোলম আর্কিপেলাগো শহরে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময়ের দুর্গ স্ট্যারোফোর্টেট রয়েছে। এটি পর্যটকদের ভ্রমণের মূল আকর্ষণ।

৬. উপসালা

দ্বাদশ শতকে উপসালা শহরে বসতি গড়ে ওঠে। এটি সুইডেনের ধর্মীয় কেন্দ্র। উপসালা শহরের বেশিরভাগ মানুষ খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বী। উপসালা শহরের মূল আকর্ষণ উপসালা ইউনিভার্সিটি ১৪৭৭ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। স্ক্যান্ডিনেভিয়ার সবচেয়ে পুরনো বিশ্ববিদ্যালয় এটি।

৭. সুইডিশ ল্যাপল্যান্ড

সুইডেনের উত্তরে অবস্থিত সুইডিশ ল্যাপল্যান্ড দর্শনার্থীদের কাছে পছন্দের শহর। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যবেষ্টিত এই শহরে সব বয়সের মানুষ ভ্রমণ করেন। ভিলহেলমিনায় ২২৩ মাইল সুবিস্তৃত পথে ভ্রমণ করে থাকেন সব শ্রেণীর মানুষ।

৮. গথেনবার্গ

সুইডেনের পশ্চিম উপকূল গথেনবার্গ শহরে উনবিংশ শতকে একাধিক পার্ক গড়ে ওঠে। শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত রয়েছে একটি খালকে কেন্দ্র করে পার্ক। পার্কটি মানুষের কাছে অনেক প্রিয়। স্ক্যান্ডিনেভিয়ার সবচেয়ে বড় বন্দর শহর এটি।

৯. গটল্যান্ড

সুইডেনের সবচেয়ে বড় দ্বীপ গটল্যান্ড। বাল্টিক সমুদ্রে অবস্থিত এই দ্বীপ সুইডেনের সবচেয়ে জনপ্রিয় দ্বীপ। এই দ্বীপে মনোমুগ্ধকর স্থাপত্যে তৈরি ভবন রয়েছে। এছাড়া ইউরোপের মধ্যযুগে নির্মিত ১০০ গীর্জা রয়েছে।

১০. স্টকহোলম

স্টকহোলম সুইডেনের রাজধানী এবং স্ক্যান্ডিনেভিয়ার সবচেয়ে বড় শহর। এই শহরে ত্রয়োদশ শতকে বসতি গড়ে ওঠে। স্টকহোলম থেকে নোবেল পুরস্কার দেয়া হয়। মিউজিয়াম, দুর্গ এখানকার আকর্ষণীয় জায়গা। বিশেষ করে স্ককলস্টার দুর্গ অনেক জনপ্রিয়। স্ক্যান্ডিনেভিয়ার মধ্যে মনোমুগ্ধকর জায়গা এটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *