ঘুরে আসুন গ্রিস: সেরা ১০ জায়গা

প্রাচীন নগরসভ্যতার কেন্দ্রস্থল গ্রিস। গ্রিসে সমুদ্রসৈকত, দুর্গ, মন্দিরসহ আরও অনেক দর্শনীয় স্থান রয়েছে। ইউরোপের মধ্যে অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র গ্রিস পর্যটকদের কাছে অনেক পছন্দের। গ্রিসের সেরা ১০ দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে বলছি।

১. কেপ সউনিয়ন

অ্যাটিকা উপদ্বীপের দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত কেপ সউনিয়ন পর্যটকদের নিকট আগ্রহের স্থান। এখানে রয়েছে গ্রিকদেবী পসিডনের মন্দির। গ্রিকরা বিশ্বাস করে থাকেন তিনি সমুদ্রের দেবতা। আগিয়ান সমুদ্রের কাছে বসে সূর্যাস্ত দেখা যায়।

২. থেসালোনিকি

গ্রিসের দ্বিতীয় বড় শহর থেসালনিকি। এটি গ্রিসের রাজধানী হিসেবে পরিচিত। এই শহরে বাইজানটাইন দেয়াল রয়েছে। হোয়াইট টাওয়ার দর্শনার্থীদের কাছে অতি প্রিয়। থেসালোনিকি শহরে রয়েছে অসংখ্য নাইটক্লাব ও অন্যান্য বিনোদনকেন্দ্র।

৩. জাগোরি

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যবেষ্টিত জাগোরিতে রয়েছে ন্যাশনাল পার্ক। এই শহর গ্রিসের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত। পাহাড়কে কেন্দ্র করে সৃষ্টি হয়েছে উপত্যকা। এসব উপত্যকায় রয়েছে অনেকগুলো গ্রাম। এসব গ্রামে রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয় স্থান।

৪. হালকিডিকি

হালকিডিকি শহরে রয়েছে একাধিক সমুদ্রসৈকত। সমুদ্রপ্রেমী মানুষ এই শহরে ঘুরতে আসেন। এই শহর মূলত একটি উপদ্বীপ। এটি তিনভাগে বিভক্ত: কাসান্দ্রা, সিথোনিয়া, অ্যাথোস। গ্রিস ও পূর্ব ইউরোপের মানুষের কাছে এই শহর অনেক পছন্দের জায়গা।

৫. পেলোপোনিজ

গ্রিসের দক্ষিণাঞ্চলে পেলোপোনিজ শহর অবস্থিত। এই শহরে রয়েছে গ্রিক মন্দির, ভেনেশিয়ান দুর্গ, বাইজান্টাইন গীর্জা এবং মাইসিনাইয়ান ভবন। পেলোপোনিজ শহর প্রাচীন সংস্কৃতির শহর। এখানে অসংখ্য ঐতিহাসিক স্থাপনা রয়েছে। বিখ্যাত অলিম্পিক গেমস এই শহরে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

৬. ডেলফি

প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ও স্থাপনার জন্য বিখ্যাত ডেলফি শহর। মাউন্টি পার্নাসাস নামে একটি পাহাড় রয়েছে শহরটিতে। ডেলফি শহরে রঢেছে অ্যাপোলো দেবীর মন্দির। এই মন্দির গ্রিসের উল্লেখযোগ্য মন্দির। এই শহরে পাইথিয়ান গেমস অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

৭. মেটেওরা

মেটেওরা শহরে চতুর্দশ থেকে ষোড়শ শতক পর্যন্ত সময়ে একটি আশ্রম তৈরি হয়েছিলো যার নাম মেটেওরা আশ্রম। এই শহরে রয়েছে অসংখ্য ঐতিহাসিক স্থাপনা। ইতিহাসপ্রেমী মানুষ এই শহরে ভ্রমণ করে আনন্দ পান।

৮. ক্রেটে

গ্রিসের অন্যতম বড় শহর ক্রেটে’তে রয়েছে পাহাড় আর অলিভ গাছের সমাহার। এই শহরে রয়েছে অসংখ্য প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা। কফিশপে বসে আড্ডা দেয়ার সুযোগ রয়েছে এই শহরে। ক্রেটে শহরে অনেকগুলো নগররাষ্ট্র রয়েছে।

৯. এথেন্স

তিন হাজার বছরের ইতিহাসে এথেন্স বিখ্যাত। প্রাচীন নগররাষ্ট্রের কারণে এথেন্স বিখ্যাত। নগররাষ্ট্রের কর্তৃত্ব এখনও এথেন্সে রয়েছে। গ্রিসের ব্যবসায় ও সংস্কৃতির প্রাণকেন্দ্র এথেন্স শহর। এই শহরে রয়েছে বিখ্যাত অ্যাক্রোপলিস, পার্থেনন, প্রাচীন অ্যাগোরাসহ আরও নানা দর্শনীয় স্থান।

১০. গ্রিক দ্বীপ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি গ্রিক দ্বীপ পর্যটকদের কাছে অনেক পছন্দের জায়গা। এখানে মনোরম সমুদ্রসৈকত, প্রাচীন ঐতিহাসিক স্থাপনা রয়েছে। এই শহরে সান্তোরিনি নামে একটি জায়গা রয়েছে। এটি গ্রিসের সবচেয়ে মনোমুগ্ধকর জায়গা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *