যুক্তরাজ্যে ফেসবুক নিউজের যাত্রা শুরু

যুক্তরাজ্যে ফেসবুক নিউজ যাত্রা শুরু করেছে। বিবিসির খবরে বলা হয়, যুক্তরাজ্যে ফেসবুক নিউজ যাত্রা শুরু করার মধ্য দিয়ে ফেসবুক নিউজের দ্বিতীয় বাজার শুরু হলো। চ্যানেল ফোর, স্কাইনিউজ, দ্য গার্ডিয়ানসহ একাধিক সংবাদমাধ্যম ফেসবুকের সঙ্গে কনটেন্ট শেয়ার করতে সম্মত হয়েছে।

বড় বড় টেক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মিডিয়ার সম্পর্ক কেমন অবস্থায় রয়েছে এই ব্যাপারে তদন্তের মধ্যেই যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম ফেসবুকের সঙ্গে কনটেন্ট শেয়ারের সম্মতি দিয়েছে।

গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে ফেসবুকের নতুন ফিচার যাত্রা শুরু করে। ফেসবুকের এক পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ৯৫ শতাংশ মানুষ ফেসবুক নিউজ ব্যবহার করছে। যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যমের কনটেন্ট শেয়ারের সম্মতি দেয়ার মধ্য দিয়ে ফিচারটি বাজার সম্প্রসারিত হলো।

ইতোমধ্যে গুগল অস্ট্রেলিয়া থেকে গত সপ্তাহে ব্যবসা গুটিয়ে নেয়ার হুমকি দিয়েছে। এর আগে ফেসবুকও এমন ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া গুগলের সঙ্গে ফ্রান্সের সংবাদমাধ্যমেরও ইউরোপীয় ইউনিয়নের পাসকৃত দুটি আইন কার্যকর করার বিষয়ে চুক্তি রয়েছে।

ফেসবুক নিউজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের নিজস্ব ফিচার। ফিচারটি নিয়ে ফেসবুক সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা রয়েছে বলে টেক জায়ান্টটি জানিয়েছে। ফেসবুক বলেছে, তাদের নতুন ফিচারের বিষয়ে মঙ্গলবার বিকেলে ফেসবুকে সরাসরি সংযুক্ত হবে তারা।

তারা আরও বলেছে, ফেসবুকের নতুন ফিচার কেবল মোবাইল ব্যবহারকারীরাই ব্যবহার করতে পারবেন এবং ব্যবহারকারীরা পছন্দমতো নিউজ পড়তে পারবেন।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা সংবাদমাধ্যমগুলোকে কনটেন্ট শেয়ারের জন্য পেমেন্ট করবে। ফিচারটিতে সংবাদমাধ্যমগুলোর বিজ্ঞাপন ও সাবস্ক্রিপশনেরও সুযোগ থাকছে। এছাড়া নতুন ফিচার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলে তৈরি করা হয়েছে।

তারা বলেছে, এই ফিচার ইন্টারনেটের ট্র্যাফিকের প্রতি দায়বদ্ধ ও সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া সংবাদ ব্যবহারকারীর চাহিদার ভিত্তিতে দেখানো হয়।

কিন্তু একাধিক সংবাদমাধ্যমের নোটিশের কারণে কয়েক বছর আগে ফেসবুক পাল্টে ফেলেছে তাদের অ্যালগরিদম। বর্তমানে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল বা ভিডিও কনটেন্টের প্রতি জোর দিচ্ছে। এক ব্লগপোস্টে ফেসবুক বলেছে, ‘সুদূরপ্রসারী ব্যবসায়িক ক্ষেত্র তৈরি করাই আমাদের উদ্দেশ্য।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *