ভয়ংকর ৬টি দর্শনীয় স্থান

আমরা অনেকে ছুটি কাটানোর জন্য সমুদ্রসৈকতকে বেছে নিলেও অনেক অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী মানুষ বেছে নেন ভয়ংকর জায়গা। বিশ্বে অনেকগুলো ভয়ংকর জায়গা রয়েছে। এসব জায়গায় সাধারণ পর্যটকরা যেতে আগ্রহ প্রকাশ না করলেও অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী পর্যটকরা সহজেই এগুলোর প্রতি আকৃষ্ট হন। আজ আপনাদের এমন ৬টি জনপ্রিয় ভয়ংকর দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে জানাবো। চলুন জেনে নেয়া যাক-

১. সেডলাক ওসুয়ারি, চেক প্রজাতন্ত্র

সেডলপাক ওসুয়ারিকে বাইরে থেকে দেখলে ইউরোপীয় মধ্যযুগে স্থাপিত খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের গথিক সম্প্রদায়ের একটি অখ্যাত গীর্জা মনে হলেও ভেতরে প্রবেশ করলে বোঝা যাবে যে এটি প্রকৃতপক্ষে গীর্জা। মানুষের কঙ্কাল দিয়ে সাজানো এই ভবন একটু ব্যতিক্রমধর্মী। ভবনটি ৪০ সহস্রাধিক কঙ্কাল দিয়ে সাজানো। গা শিউরে ওঠার মতো অভিজ্ঞতা হবে এখানে গেলে।

২. ক্যাপুচিন ক্যাটাকম্বস, সিসিলি

ক্যাপুচিন ক্যাটাকম্বসে ৮ সহস্রাধিক মৃতদেহ দিয়ে সাজানো। এটি অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী পর্যটকদের কাছে অত্যন্ত পছন্দের জায়গা। রাতে সাহসী পর্যটকরা এখানে ভ্রমণ করে থাকেন। এটি ষোড়শ শতকে নির্মাণ করা হয়। এখানে অনেকগুলো সমাধি রয়েছে। বস্তুত এটি একটি গীর্জা।

৩. ইঁদুরমন্দির, ভারত

ভারতের রাজস্থানে একটি মন্দির রয়েছে যেখানে শুধু ইঁদুর থাকে। মন্দিরটি রাজস্থানের দেশনোক অঞ্চলে অবস্থিত। ২০ সহস্রাধিক ইঁদুর এতে বসবাস করে। এটি অত্যন্ত ভয়ংকর একটি জায়গা। সাহসী মানুষ ছাড়া এখানে আসতে সবাই ভয় পায়।

৪. লেক নাত্রন, তানজানিয়া

এটি আফ্রিকা মহাদেশে অবস্থিত একটি হ্রদ। তানজানিয়ার লেক নাত্রনে অনেকগুলো মমি রয়েছে। এসব মমির মুখাকৃতি অদ্ভুত। সহজে কেউ এখানে আসতে চায় না। অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমীদের কাছে এটি কৌতূহলোদ্দীপক একটি জায়গা।

৫. পুতুলদ্বীপ, মেক্সিকো

ছোট একটি দ্বীপ ডন জুলিয়ান সান্তানা। মেক্সিকোতে অবস্থিত এই দ্বীপে পুতুলের সমাহার দেখা যাবে। দ্বীপটি সহজেই আকৃষ্ট করে তোলে। এখানে হরর মুভির শুটিং হয়ে থাকে। এটি জনপ্রিয় একটি দ্বীপ। তবে এখানে এলে গা ছম ছম করতে শুরু করবে।

৬. ফনোম সামপিয়াউ কিলিং কেইভ, কম্বোডিয়া

কম্বোডিয়ার বাত্তামবাংয়ের জঙ্গলের কাছে একটি কিলিং কেইভ রয়েছে যেখানে খমার রউজের গণহত্যা সংঘটিত হয়েছিলো। নারী-পুরুষ নির্বিচারে এই গণহত্যার শিকার হয়েছিলো। প্রতিটি মৃতদেহ আলাদা কেইভে রয়েছে। পর্যটকরা জঙ্গলটিতে অবস্থিত একটি মন্দিরে বেড়াতে আসেন। এছাড়া জঙ্গলে ঘুরে বেড়ানো প্রাণী দেখতে পর্যটকরা এসে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *